প্রতিবন্ধী ভাতা কয় মাস পর পর দেয়

প্রতিবন্ধী ভাতা কয় মাস পর পর দেয়

প্রতিবন্ধী ভাতা সহ অন্যান্য যে সকল ভাতা সমাজসেবা অধিদপ্তর চালু করেছে সেগুলো কয় মাস পরপর দেয় তা জানতে যারা এখানে ভিজিট করেছেন তাদের উদ্দেশ্যে ভাতা সংক্রান্ত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আমরা আলোচনা করব। তাছাড়া যারা একটা নির্দিষ্ট সময় পরে টাকা পাওয়ার পর আবার যদি হিসাব করতে চান অথবা নতুন যারা প্রতিবন্ধী ভাতা পাচ্ছেন তাদের যদি এই হিসাব অনুযায়ী খরচের বিষয়গুলো উঠে আসে তাহলে সঠিকভাবে জেনে নিতে পারলে খুব ভালো হয়। তাই আপনাদের জন্য এখানে প্রতিবন্ধী ভাতা কয় মাস পর পর দেয়া হয় এবং সমাজসেবা অধিদপ্তরের ক্ষেত্রে কিভাবে দায়িত্ব গুলো পালন করে থাকে তা উপস্থাপন করা হলো।

আমাদের দেশে জন্মগতভাবে এবং বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অনেক প্রতিবন্ধী রয়েছে যারা আর্থিকভাবে অনেকটাই অসচ্ছল। তাই আর্থিকভাবে অসচ্ছল প্রতিবন্ধীদের ভরণপোষণের ক্ষেত্রে কিছুটা সহায়তা মূলক যে ভাতা প্রদান করা হচ্ছে তাতে করে অনেকেই নিজেদের আর্থিক অবস্থার পরিবর্তন করতে পারছে অথবা দৈনন্দিন জীবন পরিচালনা করতে পারছে। তাই প্রতিবন্ধী ভাতা সম্পর্কে কোন তথ্য জানার থাকলে অথবা কেউ যদি নতুনভাবে আবেদন করতে চান তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন।

এছাড়া আমরা সর্বসাধারণের জন্য প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার জন্য কিভাবে আবেদন করতে হয় সে বিষয়ে আলোচনা করছি। এই আলোচনার ভিত্তিতে কেউ যদি নতুনভাবে প্রতিবন্ধী ভাতা পেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাদেরকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের ভিত্তিতে আবেদন করতে হবে। বর্তমানে প্রতিবন্ধী ভাতা থেকে শুরু করে অন্যান্য ভাতা উপজেলা ভিত্তিক বেশ কয়েকটি করে কার্ড প্রদান করা হচ্ছে বলে অনেকেই সেই সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছেন। তবে যাদের বয়স হয়ে গিয়েছে তাদের বয়স্ক ভাতার কার্ড সবচেয়ে বেশি পরিমাণ আসার কারণে প্রত্যেকটা বয়স্ক ব্যক্তি এই ভাতা পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

তাই সেই দৃষ্টিকোণ থেকে আমরা যদি প্রতিবন্ধী ভাতা সংক্রান্ত কোনো তথ্য জানার ইচ্ছা পোষণ করি অথবা প্রতিবন্ধী ভাতা সংক্রান্ত কোনো তথ্য আমাদের জানার প্রয়োজন হয় তাহলে অবশ্যই সেগুলো জানতে ইন্টারনেটে সার্চ করতে পারি। তাছাড়া উপজেলা ভিত্তিক যে সমাজসেবা কল্যাণ অধিদপ্তরের অফিস রয়েছে সেখানে গিয়েও আমরা দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের থেকে বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে অবগত হতে পারি। তাই প্রতিবন্ধী ভাতা পাওয়ার জন্য যারা বর্তমান সময়ে আবেদন করবেন তারা অবশ্যই একটু সুপারিশপত্র নিয়ে আবেদন করতে পারলে সেটা কার্যকারী হয়ে যেতে পারে।

যদি পরিবারের কোনো সন্তান প্রতিবন্ধী হয়ে থাকে তাহলে অভিভাবকেরা একজন ডাক্তারের থেকে চিকিৎসা পত্র গ্রহণ করবেন অথবা প্রত্যয়নপত্র গ্রহণ করে সেটা অনুযায়ী যদি আবেদন করেন তাহলে ভাতা হয়ে গেলে প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর টাকা পাবেন। প্রথমত আপনারা যখন প্রথমবারের মতো টাকা পাবেন তখন একটা নির্দিষ্ট অ্যামাউন্ট আপনাদের এককালীন প্রদান করা হবে। তারপরে প্রত্যেক তিন মাস অন্তর অন্তর অন্যান্য ভাতা প্রাপ্ত ব্যক্তিদের সাথে আপনাদেরকে এই টাকা প্রদান করা হবে।

অর্থাৎ আপনারা যখন ভাতা পেয়ে যাবেন তখন দেখবেন যে মোবাইল ফোনে মেসেজ আসছে অথবা নগদ একাউন্টের মাধ্যমে এই টাকা চেক করে দেখতে পারবেন। তাই আপনাদের যখন প্রতিবন্ধী ভাতা সংক্রান্ত কোনো তথ্য জানার প্রয়োজন হবে অথবা কতদিন পরপর টাকা দেওয়া হয় এ প্রসঙ্গে জানতে চাইবেন তখন বলব যে নিয়ম অনুযায়ী তিন মাস পরপর টাকা দেওয়ার বিধান রয়েছে। তবে একাউন্টে যদি টাকা না থাকে অথবা কোন কারণে যদি তহবিলে টাকা না থাকে তাহলে এই টাকা প্রদান করতে কিছুটা সময় দেরি হয়।

তবে কোনো কারণে যদি দেরি হয়ে যায় তাহলে তিন মাসের জায়গায় ছয় মাস পর পর এই টাকা প্রদান করা হয়। তবে নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যেক তিন মাস পর প্রত্যেক মাসের হিসাব অনুযায়ী 750 টাকা করে টাকা প্রদান করা হয়। তাহলে সেই হিসেবে অনুযায়ী তিন মাস পরপর ২২৫০ টাকা করে একজন ভাতা প্রাপ্ত ব্যক্তিকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে এটা প্রদান করা হয়ে থাকে। আশা করি আপনাদের প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গিয়েছেন এবং এরকম আরও যুক্তিসম্মত প্রশ্নের উত্তর জানতে আমাদের কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত অথবা প্রশ্ন জানিয়ে দিন।

About শাহরিয়ার হোসেন 4780 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*