পুত্রকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা

পুত্রকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা

আমাদের জীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া গুলির মধ্যে একটি পাওয়া হচ্ছে সন্তান। এই যে আমরা ছোটবেলা থেকে বিভিন্ন স্বপ্ন দেখতে থাকি এর মধ্যে কিন্তু এমন স্বপ্ন খুব কমই থাকে যে আমরা বড় হয়ে একজন ভালো বাবা হব। ছোটবেলায় আমরা ভাবি বড় হয়ে কোন পেশায় জড়াবো, কত বড় মাপের মানুষ হবো কিন্তু হয়তো এই কথা খুব কমই ভাবা হয় বাবা হবার পর আমরা কেমন হব।

সত্যিই, ছোটবেলায় যদিও আমরা বাবা হওয়ার কথা খুব একটা ভাবি না তবে যখন আমরা সন্তান লাভ করি তখন থেকে আমাদের দুনিয়াটা তাকে ঘিরেই তৈরি হয়। এই কথাগুলো সবচেয়ে ভালো বুঝতে পারবেন যারা ইতিমধ্যেই সন্তানের পিতা হয়েছেন। একটা সময় আমরা নিজেদের সখ পূরণ করার চেষ্টা করতে থাকি কিন্তু যখন আমাদের সন্তান আসে তখন থেকে তার শখ পূরণ করার জন্যই আমরা উঠে পড়ে লেগে যাই। এটুকু থেকেই বোঝা যায় সন্তান আমাদের জন্য কত বড় পাওয়া।

আমাদের জীবনে সন্তানের গুরুত্ব কতটা একথা সবচেয়ে ভালো বুঝবে যে অনেক চেষ্টা করে সন্তানের পিতা হতে পারছেন না। অনেকে হয়তো দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা করে আসছেন, সৃষ্টিকর্তার কাছে সর্বক্ষণ প্রার্থনা করে আসছেন শুধুমাত্র একটি সন্তান পাওয়ার জন্য। এ পৃথিবীতে সবাই যে ভালো বাবা হতে পারে তেমনটা নয়। সন্তানের সব রকম চাওয়া পূরণ করার মত ক্ষমতা সব বাবাদের হয় না কিন্তু সব বাবারাই নিজের সন্তানকে অনেক বেশি ভালোবাসে।

নিজের সমর্থের মধ্য থেকে তারা চেষ্টা করে সন্তানের জন্য ভালো কিছু করার। কিছু ক্ষেত্রে সন্তানরা এই বাস্তব সত্যটা বুঝতে পারে আবার কিছু ক্ষেত্রে সন্তানরা বুঝতে পারে না বাবাকে ভুল বুঝে বসে। যেসব বাবার সন্তানরা তাকে বুঝতে পারেনা তাদেরকে অভাগা বাবা না বলে উপায় নেই। আপনি যদি পুত্র সন্তানের বাবা হয়ে থাকেন তবে এই লেখাটি শুধুমাত্র আপনার জন্য।

আমরা জানি না আপনার সন্তানের সাথে আপনার কেমন সম্পর্ক। আপনার সন্তানের সাথে আপনার সম্পর্কটা যেমনই হোক না কেন , সন্তানের জন্মদিন আসলে আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন তাকে শুভেচ্ছা জানাতে। পৃথিবীর কোন বাবা কখনো সন্তানের খারাপ চায়নি। হয়তো সন্তানের ভালোর জন্য তারা কখনো কখনো কঠোর হয়েছে আবার কখনো কখনো পাষাণ হয়েছে কিন্তু সন্তান খারাপ থাকুক এমনটা কখনো চায়নি। তাই বলছি আপনার সন্তান যদি আপনার অবাধ্য হয়ে থাকে তাও আপনি তাকে বিশেষ দিনগুলোতে শুভেচ্ছা জানাবেন।

আজ আমরা কথা বলব নিজের পুত্র সন্তানকে কিভাবে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে পারেন। যদি তার সাথে আপনার সম্পর্ক মধুর হয়ে থাকে তবে আপনি তাকে কতটা ভালোবাসেন তা জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে বোঝাতে পারেন আবার তার সাথে যদি আপনার দূরত্ব তৈরি হয়ে থাকে তবে এমন ভাবে শুভেচ্ছা জানাতে পারেন যেন আপনার ও আপনার সন্তানের মাঝে দূরত্ব কমে আসে। চলুন দেখে আসি নিজের পুত্রকে কিভাবে শুভেচ্ছা জানানো যায়।

আজকের এই দিনটি আমার জন্য অনেক আনন্দের কারণ এই দিনে তুমি আমার জীবনে এসেছিলে। তুমি আমার জীবনের অনেক বড় একটি পাওয়া, সৃষ্টিকর্তার অনেক বড় নিয়ামত। একটা সময় ছিল যখন নিজের জীবন নিয়ে অনেক ভেবেছি কিন্তু যখন থেকে তুমি আমার জীবনে আসলে তখন থেকে তোমাকে ঘিরে আমার সকল ভাবনা। সেই ছোট্ট থেকে তোমাকে কোলে পিঠে করে বড় করেছি, চোখের সামনে তোমার নিষ্পাপ চেহারাটা দেখেছি, মাঝখানে এতদিন পেরিয়ে গেছে‌ এখন তুমি ঠিক আমার মতোই হয়েছো।

সেই যখন ছোট্টটি ছিলে তখন থেকেই তোমার জন্মদিন তোমার চেয়ে বেশি আনন্দ ছিল তোমার মায়ের কাছে আর আমার কাছে। এখন হয়তো তুমি এই দিনগুলোতে বাইরে থাকো, আমি আর তোমার মা এখনো ঠিক একইভাবে তোমার জন্মদিন উদযাপন করি। আজকের এই দিনে তোমার কাছে একটাই চাওয়া, পৃথিবীর যে স্থানে থাকো না কেন আমাদের দেওয়া শিক্ষাটা নিজের কাছে রেখো। সব সময় ভালো থেকো। একসময় আমরা হয়তো তোমার যত্ন নিয়েছি, এখন তুমি নিজের যত্নটুকু নিও।

About শাহরিয়ার হোসেন 4779 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*