গরমে মেয়েদের ত্বকের যত্ন – যা জানা প্রয়োজন

গ্রীষ্মকাল এসে গেছে। প্রকৃতিতে চরম রুক্ষতার আবির্ভাব। এতে অনেকেরই দেখা দিয়েছে সৌন্দর্যচর্চা নিয়ে সংশয়। কারণ রূপচর্চার বিষয়টি আবহাওয়ার পরিবর্তনের সাথে সাথে পরিবর্তিত হয়।

ঋতুভেদে সৌন্দর্য চর্চায় পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। গ্রীষ্মকালে যাদের ত্বক শুষ্ক তাদের নিয়ে আলাদাভাবে ভাবতে হয়। আজকের লেখায় আমরা গ্রীষ্মকাল বা গরমকালে কিভাবে মেয়েরা তাদের ত্বকের যত্ন নিবে সে সম্পর্কে আলোচনা করব।

গরমকালে তেলতেলে ত্বকের যত্ন

গরমকাল এমন একটা সময় যখন অধিকাংশের শরীর তেলতেলে থাকে। প্রকৃতির রুক্ষতায় শরীর তেলতেলে হয়ে যায়। তাদের জন্য গ্রীষ্মকালে আলাদাভাবে ত্বকের যত্ন নিতে হয়। আমাদের এ লেখায় আমরা চেষ্টা করেছি তেলতেলে ত্বকের যত্ন নিয়ে সম্পূর্ণরূপে একটি গাইড লেখার জন্য।

গরমকালে শুষ্ক ত্বকের যত্ন

গরমকালে শরীর শুষ্ক হয়ে যায়। বাতাসের আর্দ্রতার কারণে এমন হয়। বাতাসে মশ্চারাইজার এর পরিমাণ অনেক থাকে। যাদের শরীর সুস্থ তাদের জন্য আলাদা ভাবে রূপচর্চা করতে হয়। আমরা এখানে বিস্তারিতভাবে সে সম্পর্কে আলোচনা করেছি। প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়লে বুঝতে পারবেন কিভাবে আপনি আপনার ত্বকের যত্ন নিতে পারেন।

গরমকালে মেয়েদের রূপচর্চা বা সৌন্দর্য চর্চা

সৌন্দর্যপ্রিয় আমরা সকলেই। সৌন্দর্যকে ভালোবাসে না এমন মানুষ খুব কম।আমরা সকলেই চাই নিজেকে একটু সুন্দর লাগুক। যদিও সৌন্দর্যটা একটা মানুষের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার তবুও আমরা বাহ্যিক সৌন্দর্যটাকে গুরুত্ব দেই।

আর এই বাহ্যিকভাবে সৌন্দর্যকে ফুটিয়ে তুলতে সেই প্রাচীন যুগ থেকেই মানুষ ব্যবহার করে আসছে ঘরোয়া পদ্ধতি। আপনি আপনার ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষার্থে বাজারে প্রাপ্ত প্রসাধনীর চেয়ে ঘরোয়া পদ্ধতির ওপর ভরষা করতে পারেন। গরমে আপনার ত্বকের যত্নে আপনাকে একটু সতর্ক হতে হবে। এসময় রোদ, ধুলাবালি, ঘাম প্রভৃতি যেন একটু বেশিই থাকে। বিভিন্ন ধরনের ত্বক হয়ে থাকে।ত্বকের ধরন অনুযায়ী যত্নও ভিন্ন।

এই গরমে সবার আগে আপনাকে যা করতে হবে তা হলো প্রচুর পরিমানে পানি পান করা। একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তির প্রতি দিন কমপক্ষে ৩লিটার পানি পান করা উচিত।আপনার মুখে যতটা সম্ভব ঠান্ডা পানির ঝাপটা দিন। এবং যতটা সম্ভব মুখ পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। পাশের বাড়ি থেকে এসেও যেন মুখ ধুতে ভুলবেন না।
গরমে যখনই আপনি বাইরে বের হবেন সঙ্গে ছাতা নিতে একদমই ভুলবেন না।অনেকেই ছাতা ব্যবহাটাকে ঝামেলা মনে করেন। তাই আপনি এক্ষেত্রে সানস্ক্রিনও ব্যবহার করতে পারেন, তাও আবার আপনার ত্বকের ধরন অনুযায়ী।

গরমে আপনার ত্বকে আপনি বরফ কুচি লাগাতে পারেন। তবে সরাসরি তা আপনার ত্বকে লাগানো যাবে না।কাপড় ব্যবহার করে ত্বকে বরফ লাগান। এক চামচ গোলাপজল আর দুই চামচ পানি মিশিয়ে বরফ তৈরি করে তা ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারেন শসা। তরমুজের রসও ব্যবহার করা যায়।
গ্রীষ্মকালে আমাদের দেশে নানা ধরনের ফল পাওয়া যায়। প্রচুর পরিমানে দেশি ফল খান।খেয়াল রাখুন দিনে একটা হলেও যেন আপনার খাদ্য তালিকায় দেশি ফল থাকে। যে ফলই খান না কেন (আঙ্গুর বাদে) আপনার ত্বকে একটু মেখে নিন।
বাইরে থেকে এসে অনেকেই আমরা ক্লান্তির জন্য ত্বকের সঠিক পরিচর্যা করি না।যা আমাদের ত্বকের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।একটু কষ্ট হলেও আমাদের উচিত এই আলসেমিটা না করা।
ত্বকের জন্য বাদাম খুব উপকারী। প্রতিদিন কিছু বাদাম খান।
হালকা কুসুম গরম পানির সাথে চকলেট মিশিয়ে খান। এটি আপনার বয়সের ছাপ মুখে পড়তে দেবে না।
ঘরোয়া পদ্ধতিতে রূপ চর্চায় প্রাচীন কাল থেকে হলুদ ব্যবহার খুব জনপ্রিয়। হলুদ ব্যবহারে প্রথমেই যেটি লক্ষ্য রাখতে হবে তা হলো হলুদ মুখে লাগানোর পর কখনোই রোদে যাওয়া যাবে না।

হলুদ মেখে রোদে গেলে ত্বক পুড়ে যায়। হলুদ সরাসরি মুখে মাখবেন না। কুসুম গরম একগ্লাস দুধে দুই চামচ কাঁচা হলুদের রস খান। এতে এক চামচ মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। এটি আপনার সৌন্দর্যকে ভেতর থেকে ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করবে।

রাতে ঘুমানোর আগে ই-ক্যাপ অর্থাৎ ভিটামিন “ই” লাগিয়ে নিন। এটি আপনার ত্বকের জন্য খুব ভালো।

যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা ময়দার পেস্ট তৈরি করে লাগালে ভালো ফল পাবেন।আর শুষ্ক ত্বকের অধিকারীগণ দুধের সর, গোলাপের পাপড়ি আর ময়দার পেস্ট লাগিয়ে নিতে পারেন।
আমরা বেশির ভাগ সময়ই শীতে শুধু হাত-পায়ের ত্বকের যত্ন নেই। কিন্তু আমাদের উচিত গরমেও এদের যত্ন নেওয়া। একচামচ গ্লিসারিনের সাথে তিন চামচ পানি মিশিয়ে এটি ব্যবহার করতে পারেন সারা বছর। এছাড়াও মশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন।
সব সময় নিজেকে হাসিখুশি রাখার চেষ্টা করুন। এবং নিজেকে টেনশন ফ্রি রাখার চেষ্টা করুন।
গরমে মেক-আপ করার সময় সতর্ক থাকা উচিত। এসময় তৈলাক্ততার কারণে মেক-আপ সঠিক ভাবে ত্বকে বসতে চায় না।

মেক-আপ করার আগে বরফ কুচি লাগাতে পারেন। এবং মেক-আপ তুলতেও সতর্কতা অবলম্বন করুন। নারিকেল তেল, অলিভওয়েল ব্যবহার করা যায়। মেক-আপ তোলার পর ক্লিনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে মশ্চারাইজার লাগান।

Updated: March 4, 2020 — 6:58 pm

The Author

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স কমপ্লিট করেছেন। বর্তমানে একই বিভাগে মাস্টার্স এ অধ্যায়নরত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *