ভাবি ও বৌদি পটানোর সহজ উপায় ও কৌশল – জেনে নিন কিভাবে বৌদিকে পাগল করে বশে আনবেন

আপনার কি কোন প্রতিবেশী ভাবী রয়েছে? তার রূপে আপনি মুগ্ধ? তার সাথে প্রেম করতে চাচ্ছেন? তাহলে এখনি তাকে পটিয়ে ফেলুন।

আপনি জানেন না কিভাবে কোন মেয়েকে পটাতে হয়? তাহলে এই লেখা টি আপনার জন্য। কারণ আমরা এখানে আলোচনা করব ভাবি পটানোর সহজ উপায় নিয়ে।

এই লেখাটি পড়ার মাধ্যমে আপনি জানবেন বৌদিকে কিভাবে বশে আনতে হয়। তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে চলুন আলোচনা শুরু করা যাক।

আপনার সুবিধার্থে আমরা আর্টিকেলটিকে কতগুলো ভাগে বিভক্ত করব। প্রথমে দেখব কতগুলো মাধ্যমে আপনি আপনার ভাবি বা বৌদির কাছে পৌছাতে পারেন।

ফেসবুকে ভাবিকে পটানোর উপায়

আপনার কোন প্রতিবেশী সুন্দরী ভাবির ফেসবুক আইডি সংগ্রহ করুন। এ কাজটি মোটেই কঠিন না। আমরা আপনাকে কিছু টিপস দিচ্ছি।

নিশ্চয়ই ভাবির হাজবেন্ডের নাম আপনার জানা এবং আপনার সাথে সুপরিচিত। সুতরাং ভাবির হাজবেন্ড অবশ্যই আপনার ফ্রেন্ড লিস্টে থাকতে পারে। এবং এটাই স্বাভাবিক।

আর যদি না থাকে তাহলে তাকে রিকোয়েস্ট পাঠান বা তার আইডি ফলো করুন। এবার আপনাকে আসল কাজটি করতে হবে।

হাজবেন্ডের পোস্টে তার স্ত্রী কমেন্ট করবে এটাই স্বাভাবিক। আপনি আপনার ভাইয়ের প্রোফাইল পিকচারে গিয়ে কে কে লাইক দিয়েছে বা কমেন্ট করেছে সেটা চেক করুন। সেখানে দেখতে পারবেন আপনার ভাবীর ফেসবুক আইডি। এই বুদ্ধিতেই অনেকেই তাদের পছন্দের মানুষের আইডি সংগ্রহ করে।

ফেসবুকে আইডি সংগ্রহের কাজ শেষ। এবার আসল কাজ করতে হবে। আপনি সুন্দর করে আপনার মনের কথা লিখে ভাবিকে একটি মেসেজ পাঠান।

তবে ভুলেও প্রথম ম্যাচে যে আপনি তাকে পছন্দ করেন বা ভাবির রূপের বর্ণনা দিয়ে কোন মেসেজ লিখবেন না। তাহলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

অনেক অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় স্ত্রীর ফেসবুক আইডি ওর স্বামী দেখাশোনা করে। এমন ঘটলে বিপত্তি বাঁধতে পারে। সে কারণেই প্রথমে তাকে বন্ধুত্বের অনুরোধ গ্রহণ করতে বলুন।

এরপরে হাই, হ্যালো, কেমন আছেন দিয়ে চ্যাটিং শুরু করুন। কথা বলতে বলতে জেনে নিন আপনার ভাবীর আইডির পাসওয়ার্ড ভাইয়ের কাছে আছে কিনা।

যদি আইডি পাসওয়ার্ড না থাকে তাহলে আপনার মনের কথা বলতে পারেন। তবে যত ধীরে ধীরে আগাবেন ততই আপনার জন্য ভালো। কারণ তাড়াহুড়ার ফল কখনোই ভালো হয় না।

ফেসবুক মেসেঞ্জারে বৌদিকে পটানোর উপায়

বৌদির সাথে মেসেঞ্জারে কানেক্ট হওয়ার পরে তার খোঁজখবর নেওয়া শুরু করুন। প্রতিদিন নিয়ম করে মেসেজ দেওয়া শুরু করুন। তার শরীর কেমন আছে, স্বামী কেমন আছে এগুলো জানতে চান।

যদি বুঝতে পারেন বৌদি আপনার সাথে কথা বলতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে বা কথা বলে মজা পায় তাহলে মনের কথা বলুন আস্তে আস্তে। খুব সহজেই পটিয়ে ফেলতে পারবেন তার দুর্বলতা জানতে পারলে।

এজন্য প্রথমে আপনাকে জেনে নিতে হবে কিসে আপনার বৌদি দুর্বল। দুর্বল পয়েন্টে সরাসরি আঘাত করে তার মন জয় করে ফেলতে পারবেন। এর পরে কি হবে তা নাইবা বললাম।

বৌদি পটানোর কবিতা

বৌদির সাথে যোগাযোগের উপায় থাকলে তাকে কবিতা বা ছড়া লিখে ইমপ্রেস করতে পারবেন। আপনার সুবিধার কথা চিন্তা করে আমরা বৌদি পটানোর কিছু সুন্দর সুন্দর কবিতা নিয়ে হাজির হয়েছি।

এগুলা আপনি আপনার বৌদিকে ফেসবুক, মেসেঞ্জার, ইমো, হোয়াটসঅ্যাপ বা মোবাইল ফোনে এসএমএস করে জানাতে পারবেন। আর আপনি যদি একধাপ এগিয়ে থাকেন তাহলে চিঠিতেও এসব কবিতা লিখে তার মন জয় করতে পারবেন খুব সহজেই।

মোবাইল ফোনে বৌদি পটানোর উপায়

ভাবি বা বৌদিকে মোবাইল ফোনে পটাতে চাইলে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে হয়। যারা এ সকল উন্নত কৌশল জানে তারা খুব সহজেই কাজ করতে পারে। এক্ষেত্রে আমার এক পরিচিত বন্ধুর কথা শেয়ার করতে পারি।

তার নাম স্পর্শহীন অথই। এখানে আমরা তার প্রাইভেসির কথা চিন্তা করে ছদ্মনাম ব্যবহার করলাম। বৌদি পটাতে এতই এক্সপার্ট যে দেশের সীমানা পেরিয়ে এখন বিদেশি বৌদিদচর দিকে হাত বাড়িয়েছে।

তিনি মূলত ফেসবুক মেসেঞ্জারে মেয়েদের আইডি সংগ্রহ করে তাদেরকে বশে আনেন। এজন্য প্রথমে বিভিন্ন ফেইসবুক পেইজ বা গ্রুপে গিয়ে মেয়েদের রিয়েল আইডি সংগ্রহ করে। এ কাজটি তিনি কমেন্টের ওপর ভিত্তি করে করে থাকেন।

কারণ রিয়েল আইডির কমেন্ট দেখলেই বোঝা যায় এই আইডিগুলো আসল। এর পরে তার প্রথম মেসেজটা হয় বৌদির রূপের প্রশংসা করে। বৌদি যখন মেসেজের রিপ্লাই দেয় তখন তো খেলা জমে যায়।

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স কমপ্লিট করেছেন। বর্তমানে একই বিভাগে মাস্টার্স এ অধ্যায়নরত।

Related Articles

Back to top button
Close
Close