মেয়েদের ইসলামিক নাম – সব অক্ষর দিয়ে আরবি নাম অর্থসহ

প্রতিদিন পৃথিবীতে গড়ে ৩ লক্ষ ৮৫ হাজার শিশু জন্মগ্রহণ করে। এদের প্রায় অর্ধেক মেয়ে এবং অর্ধেক ছেলে। তাহলে সহজেই যাবে আমরা ধরে নিতে পারি প্রতিদিন প্রায় ৪ লক্ষ মানুষের নাম রাখা হয়। মুসলিম জনসংখ্যার ঘনত্বের বিবেচনায় প্রতিদিন প্রায় ১ লক্ষ ৩০ হাজার মুসলমান মানুষের নাম রাখা হয়।

তবে এদের সবাই যে ইসলামিক নাম রাখে তা কিন্তু নয়। অনেককে দেখা যায় ইংরেজি শব্দের নাম রাখতে। বা অন্যান্য ধর্মাবলম্বী মানুষের নামানুসারে নাম রাখতে। অনেকক্ষেত্রে দেখা যায় নতুন শব্দের প্রয়োগে নাম রাখা হয়।

কিন্তু একজন মুসলমানের নাম অবশ্যই ইসলামিক হওয়া আবশ্যক। এক্ষেত্রে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম নামকরণকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। নামকরণের ক্ষেত্রে অবশ্যই নামের অর্থ বিবেচনায় নেওয়া উচিত।

আজকে আমরা তেমন কিছু ইসলামিক নাম নিয়ে হাজির হলাম যেগুলো মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। এখানে মেয়েদের আরবি নাম অর্থসহ তুলে ধরা হলো।

মেয়েদের সুন্দর ইসলামিক নাম অর্থসহ

বর্তমানে অধিকাংশ পিতা-মাতা চায় তাদের মেয়ের বা ছেলের একটা সুন্দর নাম থাকবে। নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে ইসলামিক শব্দ কোরআনে পাওয়া যায় এমন কোন নাম রাখতে তারা অধিকতর বেশি পছন্দ করেন। কিন্তু যথোপযুক্ত তথ্যের অভাবে তারা নাম খুঁজে পান না। বা পেলেও নামের অর্থ খুঁজে পাওয়া যায় না।

আপনাদের এ সমস্যার কথা বিবেচনা করেই আজকের এই আর্টিকেলটি লিখছি। এখানে আমরা সুন্দর সুন্দর ইসলামিক নাম তুলে ধরব। সেইসাথে আরবি নাম গুলোর অর্থ আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করা হবে। আশা করছি আমাদের আয়োজন আপনার ভালো লাগবে।

অর্থ বিবেচনা করে মানুষের নাম রাখার গুরুত্ব অপরিসীম। নিচে তার একটা উদাহরণ দেওয়া হল। আশা করব এটা পড়ে অর্থবহ নাম রাখার গুরুত্ব অনুধাবন করতে পারবেন।

ধরুন, কোন ব্যক্তির নাম রাখা হল- ইয়াসার। ইয়াসার অর্থ- প্রাচুর্য, সুখ, সহজ। আর কেউ জানতে চাইলো- ঘরে কি ইয়াসার আছে? উত্তর দেয়া হলো- না, নেই। ঘরে সুখ ও প্রাচুর্যের উপস্থিতিকে অস্বীকার করে বলা হচ্ছে, ঘরে সুখ ও প্রাচুর্য নেই। এ কারণেই নবীজি(সাঃ) এ ধরনের নাম অপছন্দ করতেন এবং সুন্দর ও অর্থবহ নাম রাখার প্রতি গুরুত্ব দিয়েছেন।
আমাদের ইসলামে নানাভাবে আমাদের বোঝানো হয়েছে যে আমরা যেন আমাদের সন্তানদের রাখার সময় অর্থের দিকে খেয়াল রাখি।

অনেককেই দেখা যায় মেয়ের নাম রাখার ক্ষেত্রে পিতা বা মাতার নামের প্রথম অক্ষর ব্যবহার করতে চান। আপনাদের কথা চিন্তা করেই আমরা আমাদের এই লেখাটিকে অক্ষরের ক্রমানুসারে সাজিয়েছি। সুতরাং আপনি চাইলে আপনার স্ত্রী বা স্বামীর নামের প্রথম অক্ষর দিয়ে আপনার মেয়ে সন্তানের ইসলামিক নাম রাখতে পারেন।

আ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম

আ অক্ষর দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ নিচে প্রকাশ করা হলো। কন্যা সন্তানের পিতা-মাতার নামের প্রথম অক্ষর যদি আ হয়, তাহলে এ ধরনের নামের প্রয়োজন হয়। আপনাদের সুবিধার্থে এমন কিছু ইসলামিক নাম অর্থসহ প্রকাশ করা হলো যেগুলোর প্রথম অক্ষর আ।

আ অক্ষর দিয়ে তিন অক্ষরের ইসলামিক নাম আফরা। এর অর্থ সাদা বা শুভ্র।

ক দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম

কামরুন একটি আরবি নাম। চার অক্ষর বিশিষ্ট এই নামটির অর্থ ভাগ্য। এরকম আরো অনেক সুন্দর সুন্দর ইসলামিক নাম নিচের তালিকা থেকে পছন্দ করে নিন।

কানিজ তিন অক্ষর বিশিষ্ট মেয়ের ইসলামিক আরেকটি নাম যেটা ক অক্ষর দিয়ে শুরু হয়। এই নামের অর্থ অনুগতা। অর্থাৎ যে অনুগত থাকে।

ই দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম

ইসমাত আফিয়া আরবি নামের অর্থ পূর্ণবতী। এই নামটি ই অক্ষর দিয়ে শুরু। আপনার কন্যা সন্তানের নাম ইসমাত আফিয়া রাখতে পারেন।

ইরতিজা আরেকটি ইসলামিক নাম যেটা এই অক্ষর দিয়ে শুরু। এই নামের অর্থ অনুমতি। অসাধারণ সুন্দর একটি নাম।

আমাদের সংগ্রহে আরো একটি ইসলামিক নাম রয়েছে যেটা ই অক্ষর দিয়ে শুরু হয়েছে। ইসরাত আরবি নামের বাংলা অর্থ অর্থ সাহায্য বা সহায়তা।

স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম

স দিয়ে শুরু হয় এমন একটি সুন্দর অথচ খুবই কম মানুষের দেখা যায় এমন নাম সাইয়ারা। এই নামের আভিধানিক অর্থ তারকা।

সায়মা আরো একটি সুন্দর ইসলামিক নাম। তিন অক্ষর বিশিষ্ট আরবি এই নামটির অর্থ রোজাদার।

সুলতানা আরবি নামের অর্থ মহারানী। এগুলো ছাড়াও আরো অনেক আরবি নাম নিচে তুলে ধরা হলো। আপনার পছন্দের নামটি বেছে নিন।

ত দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম

জ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম
হ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম
ফ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম
শ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম
ল দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম
ম দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থ সহ

দুই অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম

অনেকে যেমন রয়েছেন বড় নাম পছন্দ করেন তেমনি অনেকেই আবার ছোট নাম পছন্দ করেন। দুই বা তিন অক্ষরের নাম গুলো উচ্চারণ করতে অল্প সময় লাগে। এবং এই নামগুলো খুব শ্রুতিমধুর হয়ে থাকে। পক্ষান্তরে বড় নাম বা অনেক অক্ষরবিশিষ্ট নামগুলো উচ্চারণ করতে অনেক বেশি সময় লাগে এবং এগুলো উচ্চারণ করা কষ্টসাধ্য।

এখানে আমরা দুই অক্ষর বিশিষ্ট মেয়েদের ইসলামিক নাম এবং তার অর্থ নিয়ে আলোচনা করবো।

তিন অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম

অনেকের যেমন দুই অক্ষরের নাম পছন্দ তেমনি কিছু মানুষের তিন অক্ষরের নামও পছন্দ। দুই অক্ষরের তুলনায় তিন অক্ষরের নাম অধিকতর বেশি পছন্দের। কারণ তিন অক্ষরের নাম অনেক বেশি শ্রুতিমধুর হয়। এবং নাম ধরে ডাকলে কানের কাছে প্রতিধ্বনি শোনা যায়।

আমরা আপনাদের সুবিধার্থে তেমন কিছু ইসলামিক নাম নিয়ে হাজির হলাম যেগুলো তিন অক্ষর বিশিষ্ট। আপনি আপনার কন্যা সন্তানের বা আপনার আত্মীয়র মেয়ে সন্তান হলে এই নামগুলো রাখতে পারেন।

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স কমপ্লিট করেছেন। বর্তমানে একই বিভাগে মাস্টার্স এ অধ্যায়নরত।

Related Articles

Back to top button
Close