অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ

অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধ হওয়ার কারণ

আপনাদের জন্য আজকে বিশেষ করে মেয়েদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এমন একটি পোস্ট লিখতে চলেছি যে পোস্ট অবশ্যই আপনাদের অনেক চিন্তার অবসান ঘটাবে। আপনারা আমাদের পোস্ট এর হেডিং দেখেই হয়তো বুঝতে পেরেছেন আমরা কি নিয়ে লিখতে চলেছি। বর্তমান দিনে এই তথ্যগুলো বা এই প্রশ্নের উত্তর প্রায় অধিকাংশ নারী খোঁজেন।

সকলের জন্য আমরা আজকে কিছু তথ্য নিয়ে হাজির হলাম এবং এ তথ্যগুলো আশা করবে আপনাদের কাজে আসবে। আমরা আপনাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করব যত বেশি হোক সে তথ্যগুলো আপনাদের কাজে আসবে।

অবিবাহিত মেয়েদের অনিয়ত মাসিক হওয়ার পর

অবিবাহিত মেয়েরা হঠাৎ করেই অনুভব করে যে তার যে প্রত্যেকটি মাসে একটি ঋতুস্রাব এর সাইকেল সেটা বন্ধ হয়ে গেছে। হঠাৎ করেই সে দুশ্চিন্তায় পড়ে যায়। তার মনে অনেক চিন্তাভাবনা জমা হয় এবং সে এর ফলে কোন কিছুতেই মনোযোগ বসাতে পারে না।

কিন্তু সেখানে তার মা সে বিষয়টি লক্ষ্য করে এবং তাকে প্রশ্ন করে যে তার কি হয়েছে। সেই মেয়েটি আনতে আমতা করে মাকে সবকিছু খুলে বলে এবং সঙ্গে সঙ্গে মা হেসে ওঠে। বলে আরে পাগলি এটা তো একেবারেই স্বাভাবিক ব্যাপার বর্তমান যুগে। এটা নিয়ে টেনশন করতে হবে না চিকিৎসা গ্রহণ করলে সব ঠিক হবে।

তখন মেয়েটা বিশ্বাস করতে পারে না এবং মনে মনে অনেক শান্তি পায় এবং মাকে ধন্যবাদ জানাই এবং জানতে চাই সঠিক কারণ। সেই কারণগুলো আজকে আমরা আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব আস্তে আস্তে।

একটি কারণ হতে পারে মেয়েদের ডিম্বাণুর সমস্যার কারণে। সাধারণ মেয়েদের 12 থেকে 13 বছর বয়স থেকে ৪৫ থেকে ৫০ বছর অবধি প্রজনন কাল থাকে। সেই সময়ে তার শরীরে ডিম্বানু পরিমাণ যদি কম থাকে অথবা ডিম্বাণুতে যদি কোন ধরনের সমস্যা থাকে তাহলে যেকোনো সময় মাসিক বন্ধ হয়ে যেতে। সঠিক সমাধান হলো চিকিৎসা গ্রহণ করা।

বর্তমানে সব থেকে বড় একটি সমস্যা হচ্ছে মেয়েদের জরায়ুতে বিভিন্ন স্থানে সিস্ট হওয়া। এই সিস্ট এর কারণে যেকোনো সময় মেয়েদের মাসিক বন্ধ হতে পারে। আপনি হঠাৎ করে দেখছেন আপনার মাসিক বন্ধ হয়ে গেছে এতে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই ডাক্তার দেখান। সেখানে যদি সিস্ট ধরা পড়ে তাহলে মাত্র তিন মাসের চিকিৎসার মাধ্যমে আপনার সকল অসুখ ভালো হতে পারে। তবে এই ক্ষেত্রে সিস্ট এর অনেক ধরণ রয়েছে সেগুলো অবশ্যই আপনাকে ভালোভাবে দেখতে হবে।

হরমন জনিত সমস্যা অনেক বড় একটি সমস্যা বাংলাদেশের মেয়েদের জন্য। এই ধরনের হরমোন জনিত সমস্যার কারণে অনেকের অবিবাহিত অবস্থায় মাসিক বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তাই অবশ্যই এই ক্ষেত্রে চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে আপনাকে।

অপুষ্টি বলতে কেবলমাত্র স্বাস্থ্য কম হওয়া বা চিকন চাকন এই ধরনের বিষয়কে বোঝায় নয়। এক্ষেত্রে এমন হতে পারে অনেকে শরীর অনেক স্বাস্থ্যবান তারপরেও তার শরীরে পুষ্টির কম আছে ঠিক তখন মেয়েদের মাসিক বন্ধ হতে পারে। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে ডাক্তারি পরামর্শ অনুযায়ী নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে এবং শরীরের পরিচর্যা করতে হবে যার মাধ্যমে আপনার মাসিক নিয়মিত হতে পারে।

এছাড়াও আরো একটি কারণ হলো নানান ধরনের শারীরিক পরিশ্রম অথবা মানসিক চাপের কারণে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই চিন্তামুক্ত থাকতে হবে এবং নিয়মিত আপনাদের ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে।

অবিবাহিত মেয়েদের মাসিক বন্ধের চিকিৎসা

যারা অবিবাহিত মেয়ে আছে তাদের যদি মাসিক বন্ধ হয়ে যায় তাহলে সে অনেক দুশ্চিন্তায় করে। কি করবে ভেবে পাই না অনেক আবোল তাবোল বকে এবং অল্প দিনের মধ্যেই অনেক অসুস্থ হয়েছে।

কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে এটা একেবারে স্বাভাবিক অবস্থা এবং আপনি যেকোন ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে পারেন এই চিকিৎসা গ্রহণের জন্য। যেকোনো মেয়েদের চিকিৎসকের কাছে যান এবং তাদের সামনে আপনার সমস্যা খুলে বলুন খুব অল্প চিকিৎসার মাধ্যমে আপনি আপনার শরীরের সুস্থতা ফিরে পাবেন।

 

About শাহরিয়ার হোসেন 4780 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*