বাংলাদেশ পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২২

বাংলাদেশ পুলিশ ট্রেনিং রিক্রুট নিয়োগ

যারা শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা এবং প্রগতির জন্য কাজ করতে চাই, তাদের জন্য একটি সুখবর রয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের ট্রেনিং রিক্রুট কনস্টেবল অর্থাৎ টিআরসি পদে নিয়োগ দেবে বাংলাদেশ পুলিশ প্রশাসন। আপনার বয়স যদি 18 থেকে 20 বছরের মধ্যে হয়ে থাকে তাহলে আপনি এই আবেদন করে নিয়োগ পেতে পারবেন। ২০২২ সালের 10 সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হওয়া এই নোটিশ অনুসারে আপনারা আবেদন করতে পারবেন এবং আবেদনের পরে কয়েকটি ধাপে উর্ত্তীন্ন হওয়ার পরে নিয়োগ পেতে পারবেন।

তাহলে যারা দেশের জন্য এবং দেশ সেবায় নিজেদেরকে জড়াতে চান তারা ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে শীঘ্রই আবেদন করে ফেলতে পারেন। তবে আবেদন করার পূর্বে আপনাদের আবেদনের নিয়মাবলী জানতে হবে। এই আবেদনের নিয়মাবলী আমাদের ওয়েবসাইটে বিস্তারিতভাবে আপনাদের জন্য বর্ণনা করা আছে। তাছাড়া যদি আপনারা অরিজিনাল সার্কুলার দেখে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে অবগত হতে চান, তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটের নিচের দিকে গিয়ে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদের প্রকাশিত সার্কুলার দেখে নিন।

বাংলাদেশ পুলিশ ট্রেনিং রিক্রুট নিয়োগ ২০২২

10 সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হওয়ায় সার্কুলারে বলা হয়েছে সারা বাংলাদেশের মোট 64 জেলা থেকে 3000 জন নারী ও পুরুষ নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশ প্রশাসন। তাই সারা বাংলাদেশের ডিফেন্সে চাকরি করার ইচ্ছা যাদের রয়েছে তাদের জন্য এটি একটি সুবর্ণ সুযোগ হতে চলেছে। আপনারা নিম্নে উল্লেখিত যোগ্যতা অনুসারে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে যথাসময়ে আবেদন করুন এবং যখন আপনাদের জেলা পুলিশ লাইন্সে উপস্থিত হতে হবে তখন উপস্থিত হয়ে সকল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করুন।

হার পাওয়ার প্রজেক্ট ট্রেনিং বিনামূল্যে মেয়েদের আউটসোর্সিং বিষয়ে ট্রেনিং কারা পাবে, কবে শুরু হবে, কিভাবে করতে হবে

প্রথম থেকেই আমরা আপনাদেরকে আবেদন শুরুর তারিখ এবং শেষ তারিখ জানিয়ে দিতে চাচ্ছি। যারা ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে আবেদন করতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই 10 সেপ্টম্বর সকাল দশটা থেকে শুরু করে 7 অক্টোবর বিকাল 5 টা পর্যন্ত অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার 72 ঘণ্টার মধ্যে আপনাদের টেলিটকের মাধ্যমে টাকা প্রদান করতে হবে।

অনলাইনে আবেদনের সময় আপনারা একটা ইউজার আইডি পাবেন এবং এই ইউজার আইডি অনুসারে আপনাদের টাকা প্রদান করতে হবে। ভাই অনলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে আপনারা আপনাদের নিকটস্থ অনলাইনের কাজ করে এমন দোকানে যোগাযোগ করুন এবং আবেদন প্রক্রিয়া নির্ভুলভাবে এবং নির্দিষ্ট ভাবে সম্পন্ন করুন। তবে শেষের দিকে অনেকেই আবেদন করে বলে সার্ভারে প্রবলেম হয় তখন অনেকেই আবেদন সম্পন্ন করতে পারেন না। তাই প্রথমদিকেই আপনারা আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে নিশ্চিন্তে থাকুন।

বাংলাদেশ ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে আবেদনের জন্য নির্ধারিত কিছু যোগ্যতা রয়েছে। উল্লেখিত সার্কুলার টিতে এই যোগ্যতা’ সময় কথা বলা হয়েছে এবং আপনারা সার্কুলার থেকে যোগ্যতার কথা পড়ে নিতে পারবেন। তার পরেও আমরা এখানে আপনাদের এ বিষয়ে একটু বিস্তারিত বলে নিতে চাই। যে সকল প্রার্থীর বয়স 7 অক্টোবর ২০২২ তারিখে 20 বছরের ভেতরে থাকবে তারা আবেদনের যোগ্য বলে বিবেচিত হবে। তাছাড়া এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন এবং উর্ত্তীন্ন হওয়ার সময় 2.5 জিপি অর্জন করেছেন তারা আবেদন করতে পারবেন। যারা অবিবাহিত তারা এই পদের জন্য আবেদন করবেন। তবে যারা বিয়ে করেছেন কিন্তু তালাকপ্রাপ্ত হয়ে গিয়েছেন, তাদের ক্ষেত্রে এই আবেদন করা যাবে না।

শারীরিক যোগ্যতা ক্ষেত্রে একজন পুরুষ প্রার্থীকে 5 ফুট 6 ইঞ্চি হতে হবে এবং একজন নারী প্রার্থীকে 5 ফুট 4 ইঞ্চি হতে হবে। তবে যারা ক্ষুদ্রনৃগোষ্ঠী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান রয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে কিছুটা শিথিল করা হয়েছে। এক্ষেত্রে একজন পুরুষ 5 ফুট 4 ইঞ্চি হলে আবেদন করতে পারবে এবং একজন নারী 5 ফুট 2 ইঞ্চি হলে আবেদন করতে পারবে। তবে মুক্তিযোদ্ধাদের নাতি নাতনি এ সুযোগ পাবে না। তাছাড়া ওজনের ক্ষেত্রে বয়স এবং উচ্চতা অনুসারে বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন এই সার্কুলারে। তাছাড়া চোখের দৃষ্টিশক্তির একটি বিষয় এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। সেটি হলো একজন প্রার্থীর অর্থাৎ নারী ও পুরুষের উভয়ের চোখের দৃষ্টি 6/6 হতে হবে। উপরে উল্লেখিত যোগ্যতা ছাড়াও আরো কিছু যোগ্যতা চাওয়া হয়েছে যেগুলো আপনারা সার্কুলারটি পড়লে বুঝতে পারবেন।

তাই উপরে উল্লেখিত সার্কুলার অনুসারে আপনাদের যদি সেই যোগ্যতা থেকে থাকে তাহলে আপনারা নিজে ঘরে বসেই অথবা কোন অনলাইনের দোকানের সাহায্য নিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। তার জন্য আপনারা police.gov.com.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে ধাপে ধাপে সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করবেন। নামের ভুল বা তথ্যগত ভুল করা যাবেনা। যদি আপনি নিজের থেকে না পারেন তাহলে বড় কারো সাহায্য গ্রহণ করুন। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আবেদন প্রক্রিয়া আপনাদের সম্পন্ন হয়ে গেলে নিজ জেলা ভিত্তিক আপনাদের অন্যান্য পরীক্ষাগুলো অনুষ্ঠিত হবে। তাই আমাদের ওয়েবসাইটে দিয়ে দেওয়া সার্কুলার এর শেষের দিকে আপনারা জেলার নাম এবং অনুষ্ঠিত পরীক্ষা গুলোর নাম এবং তারিখ কোন সময়ে অনুষ্ঠিত হবে তা জেনে নিতে পারবেন।

এই পদে অনলাইনে আবেদন করার পর আপনাদের নির্দিষ্ট দিনে জেলাভিত্তিক পুলিশ লাইনস মাঠে উপস্থিত থাকতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি নিজে জেলায় বসবাস করছেন সে যে নারী পুলিশ লাইনস মাঠে উপস্থিত থাকবেন। প্রথমে আপনাদের প্রিলিমিনারি স্ক্রীনিং পরীক্ষা হবে। অর্থাৎ এখানে আপনাদের শারীরিক মাপ এবং শারীরিক সহিষ্ণুতা ক্ষমতা দেখা হবে। তবে যারা এই পরীক্ষা সম্পর্কে অবগত নয় পরীক্ষা সম্পর্কে কোন ধারণা নেই তারা www.police.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে এ পরীক্ষার একটি টিউটোরিয়াল ভিডিও পেয়ে যাবেন। ভিডিও অনুসারে আপনারা যদি বাড়িতে অনুশীলন করেন তাহলে এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারবেন।

এই পরীক্ষাটি শেষ হয়ে গেলে আপনাদের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এবং সেখানে বাংলা ইংরেজি সাধারণ গণিত এবং সাধারন জ্ঞানের উপরে আপনাদের মোট 45 মার্কের পরীক্ষা নেয়া হবে। তারপরে আপনাদের মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এবং সেখানে আপনাদের উপস্থিত বুদ্ধির পরীক্ষা নেয়া হবে। তাই এক্ষেত্রে আপনারা বড় কারো সাহায্য গ্রহণ করতে পারেন অথবা বাজার থেকে বিভিন্ন ধরনের বই পাওয়া যায় সেই বই থেকে জ্ঞান অর্জন করে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেন।

তারপরে আপনাদের পরীক্ষা শেষ হয়ে গেলে প্রাথমিক ভাবে নির্বাচন করা হবে। প্রাথমিক নির্বাচন শেষ হয়ে গেলে আপনাদের পুলিশ ভেরিফিকেশন ও স্বাস্থ্য পরীক্ষা নির্ধারিত দিনে করা হবে। সে বিষয়ে আপনাদের মোবাইলে এসএমএস দিয়ে অথবা ফোনের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে। এ সকল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারলে আপনারা চূড়ান্তভাবে প্রশিক্ষণে অন্তর্ভুক্তকরণ হবেন। প্রশিক্ষণে সঠিকভাবে প্রশিক্ষিত হতে পারলে আপনাদের চূড়ান্তভাবে নিয়োগ দেয়া হবে।

প্রত্যেকটি প্রার্থীর জন্য দেশ সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করার উদ্দেশ্যে এটি একটি মোক্ষম সুযোগ। যে সকল প্রার্থী দেশের কল্যাণ এবং 10-15 করতে চান তারা বাংলাদেশ পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়ের ভেতরে আবেদন করুন। তাছাড়া আপনারা সার্কুলারটি খুব ভালোভাবে পড়ে দেখবেন এবং আপনাদের আবেদন করার সময় এবং পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার সময় কি কি কাগজপত্র পুলিশ লাইন্সে নিয়ে যেতে হবে সেগুলো ভালো করে দেখে নিবেন। তবে অনলাইনে আবেদনের সময় আপনাদের পরীক্ষার ফি বাবদ মোট ১৩০ টাকা খরচ হবে। চূড়ান্তভাবে প্রশিক্ষণে অন্তর্ভুক্তকরণ হয়ে গেলে আপনাদের 6 মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে।

তবে আপনারা যে সকল তথ্য প্রদান করবেন সেগুলো অবশ্যই সঠিক হতে হবে। অন্যথায় পুলিশ ভেরিফিকেশনের সময় তথ্যগত ভুল থাকলে আপনাদের সকল পরিশ্রম ব্যর্থ হয়ে যাবে। তাছাড়া যারা ক্ষুদ্রনীগোষ্ঠী এবং মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান রয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে যে বিশেষ সুযোগ-সুবিধা রয়েছে সেগুলো আপনারা পড়ে দেখতে পারেন। তাই আপনারা নিজ নিজ জেলায় ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাওয়ার জন্য যেসকল নির্দেশনাবলী দেওয়া হয়েছে সেগুলো মেনে চলুন। সকলের জন্য শুভকামনা রইল এবং এ বিষয়ে কোন কিছু জানা থাকলে আমাদের ওয়েবসাইটে মন্তব্য বক্সে লিখে তার উত্তর জেনে নিন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button