পুত্র সন্তানের ইসলামিক নামের তালিকা অর্থসহ

একটি পরিবারের যখনই কোনো শিশুর জন্ম হয় তখন বাবা-মায়ের প্রধান দায়িত্ব কর্তব্য হয় সেই বাচ্চাটিকে একটি সুন্দর নাম দেওয়া। নামকরণ কাজটি প্রতিটি পরিবারের কাছে অনেক আনন্দের একটি কাজ। পরিবারের প্রতিটি সদস্য চায় সন্তানের নাম যেন অনেক সুন্দর হয় সব মানুষ প্রশংসা করে। তাই সন্তানের একটি সুন্দর নাম দেওয়ার জন্য যেন বাবা-মায়ের চেষ্টার শেষ নেই। শিশুর নামকরণ কথাটা খুব সাধারণ হলেও মূলত কাজটা অতটা সহজ নয় সবসময়।

শুধুমাত্র একটি নাম দিলেই হয় না বরং নাম প্রদানের ক্ষেত্রে অনেক কিছু চিন্তা ভাবনা করে তবেই শিশুর নাম রাখতে হয়। শিশুর নাম এমন হওয়া উচিত জানো নামটি খুব সুন্দর অর্থ বহন করে এবং ভবিষ্যতে যেন সেই শিশুটি তার সুন্দর নামের অর্থ নিজের ব্যক্তিত্বের সাথে ধারণ করতে পারে। একটি সুন্দর নাম একটি শিশুর সারা জীবন পরিচয় বহন করে আমাকে মৃত্যুর পরও মানুষ শুধুমাত্র নাম দিয়ে একটি মানুষকে চিনতে পারে। তাই শিশুর নাম রাখার টা অতন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

ইসলাম ধর্মে সন্তানের নাম রাখা কি অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ হিসেবে বিবেচনা করা হয় এবং নাম রাখার ক্ষেত্রে অনেক বিধিনিষেধ রয়েছে। সন্তানের নাম এমন হওয়া উচিত নয় যে নাম দিয়ে খারাপ বা নেগেটিভ অর্থ প্রকাশ করে। কেননা অনেক সময় শিশুর নামের কি অর্থ পরিশোধে সেই ব্যক্তির চরিত্র প্রকাশ হতে পারে। তাই নাম রাখার ক্ষেত্রে পজিটিভ অর্থ সম্বলিত নাম রাখা খুবই জরুরি।

একটি শিশু বড় হয়ে যখন বুঝতে পারবে তার নামের অর্থটি অনেক সুন্দর তাহলে অবশ্যই সে সেই সুন্দর নামটি তার ব্যক্তিত্ব গুণাবলীর ধারক ও বাহক হওয়ার চেষ্টা করবে। সন্তানের জন্য ইসলামিক নাম মাথায় করা প্রতিটি মুসলিম পিতা-মাতার একান্ত কর্তব্য এবং সেইসাথে বিশেষ গুরুত্বের সাথে নাম নির্বাচন করতে হয় তাদের। ইসলাম ধর্মে সন্তানের সুন্দর সুন্দর অর্থবিশিষ্ট শ্রুতিগোচর নাম রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মুসলিম ছেলেদের নাম রাখার ক্ষেত্রে বেশিরভাগ মানুষ ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গির বিবেচনা করে থাকে। ইসলামী বিখ্যাত ব্যক্তিবর্গের নাম অনুসারে সন্তানের নাম রাখতে দেখা যাবে ভাগ সময়। বড় বড় ইসলামিক জ্ঞানী ব্যক্তি ও নবী রাসূলের নাম অনুসারে রাখা হয় মুসলিম ছেলেদের। একটি সুন্দর নাম একটি সুন্দর অর্থ বহন করে ও নামের শ্রুতি মধুর তায় সকালে মুক্ত হয়।

এ পৃথিবীতে ইসলামিক নামের অভাব নেই তার মতো হতে পিতা-মাতা যায় সবচেয়ে সুন্দর নামটি তাদের পুত্র সন্তানের জন্য বাছাই করতে। তুমিতো থেকে একটি সুন্দর নাম পাওয়ার প্রতিটি শিশুর জন্মগত অধিকার তাই আমরা কার ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রচুর বিবেচনায়ও বিচার-বিশ্লেষণ করে রাখা উচিত যেন একটি শিশু বড় হয়ে তার নাম নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় না পরে।

মুসলিম ছেলেদের নাম রাখার ক্ষেত্রে বিখ্যাত সাহাবীদের নাম অনুসরণ করা হয় বেশিরভাগ সময় আবার আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নাম থেকেও বেছে নেওয়া হয় মুসলিম ছেলেদের নাম। এ সব নাম গুলোর অর্থ ও মাহাত্ম্য এতই বেশি যে ইসলামে এই নামগুলো সন্তানদের রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসব ইসলামিক নামের অর্থ এত বেশি সুন্দর যে যদি কোনো শিশু এসব নামের মাহাত্ম্য তাদের জীবনে ধারণ করতে পারে তাহলে অবশ্যই সে একজন ভালো মানুষ হিসেবে পৃথিবীতে পরিচিত হতে পারবে। এছাড়াও ইসলামিক অর্থ ধারণ করে ও ইসলামের ইতিহাসের সাথে জড়িত বড় বড় মুসলিম বীরদের নামক রাখতে দেখা যায় মুসলিম ছেলেদের। তবে বর্তমানের কিছু আধুনিক নাম রাখতে দেখা যায় মুসলিম ছেলেদের।

আপনাদের সুবিধার্থে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে নিয়ে এসেছি আপনাদের জন্য অসংখ্য সুন্দর কিছু নামের তালিকা মুসলিম ছেলে সন্তানের জন্য। এসব না করে আমরা পর্যায়ক্রমে সাজিয়ে রেখেছি এবং পাশাপাশি নামের অর্থ গুলো দেয়া হয়েছে সুন্দরভাবে যেন খুব সহজেই আপনি একসাথে অনেকগুলো নাম এর তালিকা অর্থসহ দেখতে পারেন। আপনি চাইলে যখন তখন আমাদের ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারেন আর আমাদের মুসলিম ছেলেদের অসংখ্য সুন্দর সুন্দর নামের তালিকা হতে বেছে নিতে পারেন আপনার পরিবারের সবচেয়ে নতুন সদস্যটির জন্য বেস্ট ইসলামিক নাম।

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button