দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা, এসএমএস ও ফেসবুক স্ট্যাটাস ও পিক, SMS, Message

বাংলাদেশ বারো মাসে তেরো পার্বণ ,তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে শারদীয়া দুর্গোৎসব।সাধারণত সনাতন ধর্মাবলম্বীরা এই উৎসব পালন করে থাকি।

শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে আত্মীয় অথবা বন্ধুমহলে বর্তমান ডিজিটাল যুগে বিভিন্ন শুভেচ্ছা বার্তা বিনিময় করা হয়ে থাকে।

আপনি আপনার আত্মীয় অথবা বন্ধুকে দুর্গাপূজা উপলক্ষে সুন্দর সুন্দর, মজার মজার বার্তা পাঠাতে চান? আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে মজার মজার, আকর্ষণীয়, ব্যতিক্রমধর্মী পূজা দুর্গাপূজা এসএমএস তুলে ধরছি।

যে কেউ চাইলেই আমাদের ওয়েবসাইট থেকে শুভেচ্ছা এসএমএস নিতে পারেন।

১. শারদীয় দুর্গোৎসবের শুভেচ্ছা নিবেন,মা দুর্গার আগমনের সাথে আপনার জীবনের সকল কষ্ট দূর হয়ে যাক। মায়ের আশীর্বাদে আপনার জীবন সুখে-শান্তিতে ভরে উঠুক। শুভ দুর্গাপূজা।

২. শরতের আগমনে কাশবনে কাশফুলের দোলা দেখা যায়, শিউলি গাছে সাদা শিউলি ফুলের সমারোহ। চারিদিকে ঢাকের শব্দ ভেসে আসে, উলুধ্বনিতে মুখরিত চারপাশ। সব কিছু যেনো মায়ের আগমনের আভাস দেয়, হ্যাপি শারদীয়া দুর্গোৎসব।

৩. উৎসবের এক নতুন আমেজে চারপাশ মুখরিত হয় মা দুর্গার আগমনে, ত্রিশূল হাতে অসুর বধে বারবার পৃথিবীতে আগমন ঘটে দেবী দুর্গার। পৃথিবীর সকল অশান্তি, নৈরাজ্য দূর করে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতেই যেনো দেবী দুর্গার এই আগমনী। সবাইকে শারদীয় দুর্গোৎসব এর শুভেচ্ছা।

৪. দুর্গোৎসব মানেই মহা আনন্দের উৎসব। ষষ্ঠী থেকে শুরু করে মহাষ্টমী ,বিজয়া দশমী প্রতিদিনই দুর্গা মা যেনো নতুন নতুন রূপে আবির্ভূত হয়, নতুন নতুন সাজে সেজে ওঠে চারিদিক। অতি আনন্দে কাটুক সবার দুর্গোৎসব, শুভ শারদীয়া।

৫. প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে দুর্গার প্রতিমা দেখা, সবার থেকে প্রসাদ খাওয়া, মায়ের পায়ে অঞ্জলি দেওয়া আর হাসি মজাতেই কেটে যায় দুর্গাপূজা।কখন যে বিদায়ের বিজয়াদশমী চলে আসে বোঝাই যায় না, সিঁদুর খেলা শেষে মায়ের ভাসান দিতে গিয়ে সবার চোখে পানি চলে আসে। সবাইকে জানাই শুভ বিজয়া।

৬.শরতের নীল আকাশে সাদা মেঘের ভেলা, চারিদিকে মৃদুমন্দ বাতাসে কাশফুলের খেলা। ঢাকি ঢাক বাজায়, দূর থেকে ভেসে আসে শঙ্খ ধ্বনি, উলু ধ্বনি তে মুখরিত চারিদিক। প্যান্ডেলে ভিড় জমেছে মায়ের প্রতিমা দেখার, এত আমেজ আর কোন উৎসবে হতে পারে? হ্যাঁ, শারদীয় দুর্গোৎসব। শুভ শারদীয়া।

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স কমপ্লিট করেছেন। বর্তমানে একই বিভাগে মাস্টার্স এ অধ্যায়নরত।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button