বান্ধবীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ফানি

বান্ধবীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ফানি

প্রচন্ড হতাশার মধ্যে থাকা একজন মানুষ যদি বেশিরভাগ সময় একা থাকার চেষ্টা করে তবে সে কখনোই হতাশা থেকে বের হতে পারবে না। খারাপ সময় গুলোতে আমাদের পাশে যদি এমন কোন মানুষ না থাকে যে আমাদের মনটা ভালো করে দিতে পারবে তবে আমরা দিনে দিনে আরও বেশি বিরক্ত হতে শুরু করব। তাই জীবনে ভালো থাকতে গেলে বিনোদন খুবই জরুরী। এজন্যই হয়তো অনেক মানুষ বন্ধু-বান্ধবীদের নিয়ে সবসময় চিল করতে থাকে।

আজ আমরা আপনাদের জানাবো কিভাবে নিজের বান্ধবীকে মজা করে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে পারবেন কারণ আপনার মজা করে লেখা শুভেচ্ছা বার্তা ঠিক অনেক মানুষের মন ভালো করে দিতে পারে। হয়তো একজন মানুষ ফেসবুকে স্ক্রল করতে করতে আপনার পোস্টটি দেখতে পেল, পোস্টটি পড়ার পর মুহূর্তের মধ্যেই তার মন ভালো হয়ে যাবে। অপরদিকে আপনার বান্ধবীর যদি মন খারাপ থাকে তবে তাকে নিয়ে লেখা ফানি পোস্টে তার মন ভালো করে দিতে পারে। চলুন দেখে আসা যাক বান্ধবীকে নিয়ে কিভাবে একটি ফানি পোস্ট লেখা যায় যেটা আপনি তার জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে ফেসবুকে শেয়ার করতে পারবেন।

কিছু মানুষ আছে যারা বান্ধবীকে নিয়ে লেখা আপনার মজার স্ট্যাটাসটি কখনো মেনে নিতে পারবে না অথবা খারাপ মন্তব্য করে বসবে। প্রথমেই আপনাদের একটি কথা জানিয়ে রাখা ভালো যে কোন পোস্ট লেখার আগে ভেবে নিতে হবে এই পোস্টের কেমন মন্তব্য আসতে পারে। আপনি যদি সব মানুষের মন্তব্য ইগনোর করতে পারেন খুব সহজেই তবে এ কাজটি আপনার জন্য অনেক সহজ হবে।

অপরদিকে আপনার কাছে যদি ওই সকল মন্তব্য গুলো ইগনোর করা সম্ভব না হয় তবে এমন কোন পোস্ট করতে যাবেন না। বান্ধবীকে নিয়ে যেকোনো মজার পোস্ট লেখার আগে তার সাথে আপনার সম্পর্ক কেমন সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে। সে যদি মজা পছন্দ করে না থাকে তবে নিশ্চয়ই এই বিষয়টি সে কখনোই ইতিবাচক ভাবে নেবে না। আপনার সাথে তার সম্পর্ক যদি গভীর হয়ে থাকে তবে আপনার বলা যে কোন কথা সে খুব সহজেই মেনে নিতে পারবে।

যারা নিয়মিত কৌতুক পড়তে ভালোবাসেন তারা মজা করে যে কোন স্ট্যাটাস লিখতে পারবেন খুব সহজেই। আর যদি আপনাদের কৌতুক পড়ার অভ্যাস না থাকে তবে বেশ কিছুদিন এগুলো নিয়ে ঘাটাঘাটি করতে পারেন। এমন অনেক জোকস আছে যেগুলো আপনাকে মজা করে স্ট্যাটাস লেখার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে পারে। আপনার লেখা স্ট্যাটাসটি সম্পূর্ণ নিজের মত হতে হবে অর্থাৎ আপনি যা লিখবেন সম্পূর্ণ মন থেকে লেখার চেষ্টা করবেন। যদি মনে করেন আঞ্চলিক ভাষায় একটি পোস্ট লিখে ফেলতে পারেন। আঞ্চলিক ভাষায় লেখা পোস্টগুলো সবসময় বেশ মজার হয়ে থাকে।

জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি আপনি নিজের বান্ধবীকে এমন কিছু উপহার দিতে পারেন যা শোনার সাথে সাথে আপনার অন্য বন্ধু-বান্ধবেরা হাসতে বাধ্য হবে। কিভাবে জন্মদিনের শুভেচ্ছা বার্তা লিখবেন এবং তা মজাদার হবে তার একটি উদাহরণ আমরা নিজে তুলে ধরলাম।

প্রিয় বান্ধবী, তোর জীবনের বাইশটি বছর পার করে আজ ২৩শে পা দিয়েছিস। আমি জানি এই ২৩ বছর ধরেই তুই অপেক্ষা করে আছিস কবে বিয়ে করবি সেই দিনটির। তোর এই অপেক্ষার প্রহর আর শেষ হচ্ছে না। আমার মনে হয় এই যে আমরা প্রতিদিন তোকে নিয়ে বদদোয়া করি এইটা তোর লেগে গেছে। আজকের এই দিনটিতেও তুই যদি আমাদের দাওয়াত না দিস তবে আগামী 30 বছরেও তোর বিয়ে হবে না। জন্মদিনের উপহার হিসেবে তোর বাড়িতে একজোড়া পুরাতন জুতা পাঠালাম। আশা করি তুই উপহারটি গ্রহণ করে আমাদের ধন্য করবি। সামনের দিনগুলো হোক আরো বেশি প্যারাময়। আশা করি যেমন মুহূর্ত-ই আসুক তুই উপভোগ করবি।

About শাহরিয়ার হোসেন 4779 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*