মেয়েদের ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার ক্রিম

মেয়েদের ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার ক্রিম

সব মেয়েরাই চায় তাদের ঠোট থাকুক সুন্দর এবং নমনীয়। এক জোড়া সুন্দর ঠোঁটের প্রতি সবার আকর্ষণ থাকে। যখন অন্যের ঠোঁট সুন্দর দাগ হীন দেখায় তখন নিজের মনের অজান্তেই নিজের ঠোঁটগুলো সেরকম দাগ হীন সুন্দর হবার আকাঙ্ক্ষা সব মেয়ের মনের মধ্যে জেগে ওঠে। কিন্তু আমাদের ঠোঁট আমরা সুন্দর দাগ হীন করতে চাইলেও এমন কিছু অভ্যাস আমাদের মধ্যে রয়েছে যে অভ্যাসগুলোর কারণে আমাদের ঠোঁটের মধ্যে কালো দাগ হয় এবং ঠোঁট কালো হয়ে যায়। হাই বন্ধুরা আজকে আমরা নিয়ে এসেছি আপনাদের জন্য নতুন একটি আর্টিকেল।

আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আলোচনা করব মেয়েদের ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার ক্রিম সম্পর্কে যাবতীয় সকল তথ্য। কোন ক্রিম ব্যবহারের মাধ্যমে মেয়েদের ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে সেই ক্রিম গুলোর সম্পর্কে আমরা আলোচনা করব। আপনাদের যদি জানার আগ্রহ থাকে তাহলে অবশ্যই আপনারা আমাদের আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ুন।

ঠোঁটের যত্নে এবং কালো দাগ দূর করার ক্রিম

Draiprovet ointment : ক্রিমটি ব্যবহার করার পর বেশ কিছুদিনের মধ্যেই আপনার ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে। এই ক্রিমটি যে কোন ফার্মেসিতে পাওয়া যাবে। ক্রিমটি শুধু ঠোঁটে ব্যবহার করার জন্য। ক্রিম কি আপনি মাত্র 35 টাকা মূল্যে পেয়ে যাবেন।

ক্লিনজিং মিল্ক বা কোল্ড ক্রিম: এই ক্রিমটি ঠোঁটের কালো দাগ কমানোর জন্য প্রতিদিন এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ঠোঁটে লাগিয়ে কিছু সময় পর ভেজা তুলো দিয়ে মুছে ফেলুন তারপর হালকা নারসিং ক্রিম লাগিয়ে ঘুমাতে যান এতে করে খুব সহজেই আপনার ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

ঠোঁটের যত্নে ঘরোয়া কিছু টিপস

টুথপেস্ট: প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে আপনি যখন দাঁত ব্রাশ করেন, তখন টুথপেস্ট এর কিছুটা আপনার ঠোঁটের উপর লাগিয়ে প্রলেপ দিন। কিছুক্ষণ পর ব্রাশ করা শেষ হলে হাতের ব্রাশটি দিয়ে ঠোট ব্রাশ করুন। এজন্য ব্রাশটিকে অবশ্যই নরম হতে হবে এবং অনেক হালকা ভাবে ব্রাশ করতে হবে। এর ফলে ঠোঁটে এবং ঠোঁটের চারপাশের মৃত কোষগুলো উঠে আসবে সতেজ হবে ঠোঁট এবং এর চারপাশ। এ থেকে আপনার কালো দাগও দূর হয়ে যাবে।

ধনেপাতা: শীতকালে বাতাসের আর্দ্রতা কমে যাবার কারণে যেমন ঠোঁট কালো হয়ে যায় ঠিক তেমনি শীতকালে ধনেপাতা প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। শীতকালে ঠোঁটের কালো দাগ দূর করতে ব্লেন্ড করা ধনেপাতা ঠোটের উপর পাঁচ থেকে দশ মিনিট স্ক্রাব করা হয় তাহলে ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

বিটরুট: ব্লেন্ড করা বিটরুট ঠোঁটের মধ্যে পাঁচ মিনিট মেসেজ করে ধুয়ে ফেলতে পারেন। এতে ঠোঁটের কালো ভাব দূর হয়ে যায় এবং অনেক বেশি সুস্থ হয়ে ওঠে। এবং তার সাথে সাথে এটি একটি গোলাপ আঁভাই এনে দিবে আপনার ঠোঁটে। কারণ বিট রোডের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে স্কিন লাইটিং এজেন্ট এবং আন্টি অক্সিডেন্ট থাকে যার ঠোঁটের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে দেয় খুব সহজেই।

এলোভেরা ও মধু: ঠোঁটের কালো দাগ দূর করার ক্ষেত্রে এলোভেরা এবং মধুর তুলনা হয় না। এক টুকরো এলোভেরার সাথে দুই তিন ফোঁটা মধু দিয়ে ঠোঁটের মধ্যে মেসেজ করতে হবে। এলোভেরা ও মধু প্রাকৃতিক মস্চারাইজার হিসেবে পরিচিত এটি ঠোঁটকে ময়েশ্চারাইজার করে ঠোঁটের ফাটা প্রতিরোধ করে।

দুধের ছানা ও মধু: দুধের ছানার সাথে এক চামচ মধু মিশিয়ে ঠোঁটের মধ্যে দশ মিনিট মেসেজ করতে পারেন। এভাবে মেসেজ করলে ঠোটের উপরের মৃত কোষ দূর হয়ে যাবে এবং ঠোঁট হবে মসৃণ।এতে করে ঠোঁটের আদ্রতা অভাব পূরণ হবে এবং ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

লেবু: প্রতিদিন রাতে ঘুমাবার আগে লেবুর সাহায্যে ঠোটকে ৫ মিনিট মেসেজ করুন এরপর ঘুমিয়ে পড়ুন। এভাবে মেসেজ করলে ঠোঁটের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে। কারণ লেবুর মধ্যে ভিটামিন সি ও সাইট্রিক এসিড পাওয়া যায় যা ক্লোজেনের উৎপাদন বাড়িয়ে ঠোঁটকে ব্রাইট ও লাইটেন করে তোলে।

About শাহরিয়ার হোসেন 4779 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*