রচনা: বিজ্ঞানের জয়যাত্রা অথবা বিজ্ঞানের বিস্ময়কর আবিষ্কার অথবা দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞানের ব্যবহার অথবা বিজ্ঞান ও আধুনিক সভ্যতা অথবা মানব কল্যাণে বিজ্ঞান

রচনা: বিজ্ঞানের জয়যাত্রা অথবা বিজ্ঞানের বিস্ময়কর আবিষ্কার অথবা দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞানের ব্যবহার অথবা বিজ্ঞান ও আধুনিক সভ্যতা অথবা মানব কল্যাণে বিজ্ঞান

প্রিয় শিক্ষার্থী ও অভিভাবক বৃন্দ আমরা আজকে নতুন একটি রচনা নিয়ে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আজকের রচনাটি বিশেষ করে ষষ্ঠ থেকে শুরু করে একাদশ-দ্বাদশ এবং তদুর্ধ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের জন্য উপযোগী একটি রচনা। আজকে আমরা রচনার মূল বিষয়গুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরব চেষ্টা করবো প্রতিটি বিষয়ে সংক্ষিপ্ত আকারে আলোচনা করার যদি সম্ভব হয় আর না হলে বাকিটা আপনারা আপনাদের পাঠ্যপুস্তক থেকে সংগ্রহ করে শেষ করবেন ইনশাল্লাহ। আজকে যে রচনাটি নিয়ে আলোচনা করব সেটি হল:

বিজ্ঞানের জয়যাত্রা
অথবা বিজ্ঞানের বিস্ময়কর আবিষ্কার অথবা দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞানের ব্যবহার অথবা বিজ্ঞান ও আধুনিক সভ্যতা
অথবা মানব কল্যাণে বিজ্ঞান

প্রবন্ধ সংকেত: ভূমিকা- বিজ্ঞানের গুরুত্ব- বিজ্ঞানের বিস্ময়কর আবিষ্কার- দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান- চিকিৎসা শাস্ত্রে বিজ্ঞান-শিক্ষা প্রসারে বিজ্ঞান-কৃষি ক্ষেত্রে বিজ্ঞান-যোগাযোগে বিজ্ঞান তথ্য প্রযুক্তিতে বিজ্ঞান বিজ্ঞানের উপকারিতা বিজ্ঞানের অপকারিতা উপসংহার।

ভূমিকা: বর্তমান যুগ বিজ্ঞানের যুগ। বিজ্ঞানের কল্যাণে মানুষ অসাধ্যকে সাধন করতে পেরেছে। ফলে পৃথিবীতে সৃষ্টি হয়েছে নবযুগের। মানুষ তার যুগ-যুগান্তরের স্বপ্ন ও সাধনার অনবদ্য ফসল দিয়ে সভ্যতার অত্যাধুনিক বিশাল ইমারত গড়ে তুলেছে। বিজ্ঞানের কল্যাণে বিকশিত হয়েছে সভ্যতা মানুষ জয় করেছে চন্দ্র, ছোট হয়ে এসেছে পৃথিবী।

বিজ্ঞানের গুরুত্ব: বিজ্ঞানের আশীর্বাদ সিক্ত হয়েছে পৃথিবী। বাষ্প শক্তি, বিদ্যুৎ শক্তি ও আণবিক শক্তি যন্ত্র, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যার নিত্য নতুন দ্বার খুলে দিয়েছে। বিজ্ঞানের মহিমায় মানুষ জয় করে চলেছে জল ও স্থল,অন্তরীক্ষ। চিকিৎসা ক্ষেত্রে, কৃষিক্ষেত্রে, যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তিতে দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞানের অবদান কে এড়িয়ে যাওয়ার উপায় নেই। আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে।

বিজ্ঞানের বিস্ময়কর আবিষ্কার: বিজ্ঞানের প্রসার ঘটিয়ে মানুষ নিত্যনতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করে চলেছে। অতল সাগরের গহীন তলদেশে থেকে শুরু করে সীমাহীন মহাকাশ ও বিশ্ব ব্রহ্মান্ডের অসীম রহস্যময় তাকে উদ্ঘাটন করে চলেছে বিজ্ঞান।

দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান: আমাদের প্রাত্যহিক জীবন বিজ্ঞানের অবদানে হয়েছে সহজতর ও দ্রুততর। বিজ্ঞানের ভূমিকা যে কত গভীর ও ব্যাপক তা উপলব্ধি করা যায় সহজেই।

চিকিৎসাশাস্ত্রে বিজ্ঞান: চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতির ফলে মানুষ আজ অকাল মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে। বিজ্ঞানের অভূতপূর্ব সাফল্যের ফলে উন্নত মানের ঔষধ, অস্ত্রপ্রচারের ব্যবস্থা, এক্স-রে, আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি, অণুবীক্ষণ যন্ত্র, টিকা আবিষ্কার এর ফলে চিকিৎসা বিজ্ঞানে এসেছে অভূতপূর্ব পরিবর্তন।

শিক্ষা প্রসারে বিজ্ঞান: বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ আবিষ্কারের পাশাপাশি শিক্ষা প্রচার ও প্রসারে বিজ্ঞানের সক্রিয় ভূমিকা অতুলনীয় কম্পিউটার ফটোস্ট্যাট মেশিন ইত্যাদি শিক্ষা গ্রহণ ও শিক্ষা প্রদান প্রক্রিয়াকে সহজতর করেছে।

কৃষি ক্ষেত্রে বিজ্ঞান: কৃষিনির্ভর দেশসমূহ বিজ্ঞানের আশীর্বাদ এক অবিস্মরণীয় সফলতা অর্জন করেছে সনাতন মান্ধাতার আমলের চাষ প্রক্রিয়া ও উপকরণের বদলে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি ও প্রযুক্তিতে চাষাবাদের কারণে ফসল উৎপাদনের হার বহুগুণে বৃদ্ধি লাভ করেছে যেমন গভীর ও অগভীর নলকূপের মাধ্যমে শেষ প্রদানের জন্য ফসল কাটা ও মাড়াই কাজে আধুনিক বিজ্ঞানের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয়ে থাকে বর্তমানে।

যোগাযোগে বিজ্ঞান: যাতায়াত ও যোগাযোগ ব্যবস্থা পুরোপুরি বিজ্ঞানের উপর নির্ভরশীল। বাস-ট্রাক, রেলগাড়ি, লঞ্চ, জাহাজ, এরোপ্লেন থেকে শুরু করে নিত্যনতুন যানবাহন সবই বিজ্ঞানের অবদান।

তথ্য প্রযুক্তিতে বিজ্ঞান: আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অন্যতম নতুন শাখা হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি(IT)। এটি এমন বিশ্বব্যাপী ব্যবসা-বাণিজ্য ও বহু শিক্ষা ক্ষেত্রে একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এবং নেটওয়ার্কিং-এ এটি বিস্ময়কর অবদান রাখছে। নেটওয়ার্কিং ও ইন্টারনেট এর ফলে এটি বর্তমানে global-communications এ পরিণত হয়েছে।

উপসংহার: উপরের আলোচনার প্রেক্ষিতে আমরা বলতে পারি যে এমন কোন ক্ষেত্র নাই যেখানে বিজ্ঞানের অবদান নেই। বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তির প্রভাবে আমরা আমাদের দৈনন্দিন কাজ গুলো খুব সহজেই করতে পারি। তবে খেয়াল রাখতে হবে মানুষ যদি বিজ্ঞানের শক্তিকে অপব্যবহার করে, সৃষ্টিকে ধ্বংস করে, আগ্রাসনের কাজে প্রয়োগ করে তাহলে দোষ হবে আমাদেরই। বিজ্ঞানের তাতে অপরাধ নেই। সবদিক দিয়ে বিবেচনা করে বিজ্ঞানের অফুরন্ত সম্ভাবনাকে মানব কল্যাণে নিয়োজিত করা সম্ভব হলেই আমাদের জন্য মঙ্গলজনক হবে।

প্রিয় শিক্ষার্থীবৃন্দ আমরা উপরের যে রচনাটি নিয়ে আলোচনা করলাম সেখানে দুটি পয়েন্ট আলোচনা করা হয় নাই একটি হল বিজ্ঞান এর উপকারিতা ও অপরটি হল বিজ্ঞান এর অপকারিতা দুটোই কিন্তু আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞানের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আমরা আশা করব এই উপকারিতা এবং অপকারিতা আপনারা আপনাদের নিজের ভাষায় লিখে নেবেন।

About শাহরিয়ার হোসেন 4780 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*