বাবা দিবস ২০২১ শুভেচ্ছা, মেসেজ, স্ট্যাটাস, পিকচার ছবি ডাউনলোড (বিশ্ব বাবা দিবস 2021)

বাবা দিবস উপলক্ষে আমাদের ওয়েবসাইটে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা, মেসেজ, স্ট্যাটাস এবং পিকচার ডাউনলোড করতে পারবেন। আমরা প্রতি বছর বাবা দিবস উপলক্ষে নতুন নতুন পোস্ট লিখে থাকি। এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনারা 2021 সালে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা মেসেজ স্ট্যাটাস এবং পিকচার খুব সহজভাবে ডাউনলোড করতে পারবেন। যারা একজন প্রকৃত সন্তান এবং বাবাকে ভালবাসেন তারা অবশ্যই বাবা দিবস আনন্দের সঙ্গে পালন করেন।

বাবা দিবসে বাবার প্রতি সম্মান দেখানোর উদ্দেশ্যে আপনারা বিভিন্ন আয়োজন করে থাকেন। যারা বাবার কাছ থেকে দূরে অবস্থান করছেন তারা অনলাইনের যুগে বাবাদেরকে মোবাইল ফোনে শুভেচ্ছা অথবা মেসেজ অথবা বাবা দিবসের শুভেচ্ছা সম্বলিত পিকচার পাঠিয়ে দিতে পারেন। আপনার আশেপাশে হয়তো হাজার হাজার টাকা খরচ করলে যে সুখ আপনি পাবেন না, একটি শুভেচ্ছা বাবাকে পাঠিয়ে তার চাইতে বেশি সুখ পাবেন।

বাবা দিবস ২০২১

আমাদের জীবনের ছোট থেকে বড় হওয়া পর্যন্ত বাবারা সবসময় পাশে থাকেন। বাবাদের সংস্পর্শে এবং অনুপ্রেরণাই এবং আর্থিক সক্ষমতা প্রদানের জন্য আমরা বেড়ে ওঠি। যেই ব্যক্তি আমাদের জীবনকে সুন্দরভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য আজীবন এত পরিশ্রম করে গিয়েছেন তার জন্য আমরা বাবা দিবসে অবশ্যই শুভেচ্ছা পাঠিয়ে দেব। যদি আমরা বাবার সঙ্গে বসবাস করি তাহলে আমরা সরাসরি বিভিন্ন উৎসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করব।

তবে আমরা প্রত্যেক সন্তানের কাছে অনুরোধ করব যে, শুধু বাবা দিবস এই বাবার প্রতি সম্মান এবং ভালোবাসা না দেখে এই সম্মান এবং ভালোবাসা প্রদর্শন করা হোক সারা বছর। যাতে বছরে বছরে বিভিন্ন জায়গায় বৃদ্ধাশ্রম করে না উঠে। তাই প্রত্যেকটি বাবার প্রতি সম্মান, ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা নিবেদন করে বাবা দিবসের এই পোষ্ট শুরু করছি।

বিশ্ব বাবা দিবসের শুভেচ্ছা

বাবা দিবস উপলক্ষে আমরা বাবাকে শুভেচ্ছা জানাতে পারি। অনেক সন্তান আছেন যারা লজ্জাই বাবাকে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা জানাতে পারেন না। এক্ষেত্রে বাবা-মায়ের কাছে লজ্জা করার কিছুই নেই। বাবা দিবসে বাবার সামনে যাবেন এবং তাকে জানাবেন বাবা, আজকে বাবা দিবস। আজকের বাবা দিবসে আপনার জন্য অনেক দোয়া এবং শুভকামনা রইল। এভাবে কয়েকটি ভালো কথা বললে দেখবেন আপনার বাবা অনেক খুশি হয়ে গিয়েছে।

বিশ্ব বাবা দিবসের শুভেচ্ছা

প্রকৃতপক্ষে বাবার মুখে অথবা মায়ের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা খরচ করার কোন দরকার হয় না। তাদের মুখের সামনে একটু মিষ্টি ভাষায় কথা বলা এবং সম্মান প্রদর্শন করাই হলো তাদের আসল প্রাপ্তি। বাবা দিবসে বাবাকে যদি সুন্দর ভাষায় শুভেচ্ছা না জানাতে পারেন তাহলে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা গ্রহণ করবেন। তাছাড়া বিশ্বের প্রতিটি বাবাকে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে পারেন।

বাবাকে নিয়ে কিছু কথা

আমাদের জীবনে একজন বাবার গুরুত্ব যে কতটা অপরিসীম তা আমরা বুঝতে পারি। আপনি আপনার আশেপাশের লক্ষ্য করলে দেখবেন যে সেই সন্তানটি হতভাগা যার বাবা নেই। একজন বাবা যদি আপনার সাথে থাকে তাহলে আপনার মাথার উপরে ছাতা ধরার মতো একজন মানুষ রয়েছে। কিন্তু যখন সংসারে বাবার অনুপস্থিতে অনুভব করবেন তখন দেখবেন এই জীবন কতটা কষ্টের এবং বাস্তবতার।

বাবাকে নিয়ে কিছু কথা

কিন্তু আমাদের জীবনে যখন বাবার উপস্থিতি দেখা যায় তখন জীবন অনেক সহজ হয়ে যায়। বাবা এমন একটা মানুষ যিনি হাজার ত্যাগ-তিতিক্ষা স্বীকার করে সন্তানের মুখে হাসি ফোটাতে সর্বদা প্রস্তুত। তাই বাবাকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শন আমরা করব। তাদের চাওয়া পাওয়া গুলো আমরা মূল্যায়ন করতে শিখব। এরকমভাবে আপনারা বাবা দিবসে বাবাকে নিয়ে কিছু কথা বাবাকে শোনাতে পারেন। তাদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য তাদেরকে ভালোবাসা প্রদান করতে পারেন।

বাবা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা

বাবা দিবসে আমরা আমাদের বাবাকে শুভেচ্ছাবার্তা জানাবো। বাবা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে দিয়ে দিয়েছি। আপনারা যদি আপনাদের বাবা কে ভালোবাসেন তাহলে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা অবশ্যই জানাবেন। তবে প্রত্যেকটি সন্তানের উচিত বাবাকে ভালোবাসার। কারণ একজন বাবা তার সন্তানের ভবিষ্যত জীবণ সুন্দরভাবে গড়ে তোলার জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেন।

বাবা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা

মৃত বাবাকে নিয়ে কিছু কথা/স্ট্যাটাস

যে মানুষটি আপনার জীবনকে সুন্দরভাবে গড়ে তোলার জন্য তার সারা জীবনের সুখ স্বাচ্ছন্দ বিসর্জন দিয়েছেন, সেই ব্যক্তির জন্য মনে প্রানে থেকে ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা আপনাআপনি চলে আসে। তাই আপনি যদি বাবা দিবসের দিন তারিখ জেনে থাকেন তাহলে বাবা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা তাকে পাঠিয়ে দিবেন। এই সামান্য শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়ে আপনি যে তার কাছে কতটা মূল্যবান এবং ভালোবাসার পাত্র হবেন তা করলেই বুঝতে পারবেন।

মৃত বাবাকে নিয়ে কিছু কথা/স্ট্যাটাস

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button