মেয়ে পটানোর উপায়, টিপস ও কৌশলসমূহ – মোবাইল ফোন এবং ফেসবুকে মেয়ে পটানো শিখুন

আপনার কি কোন মেয়েকে ভালো লেগেছে? আপনি কি তার সাথে প্রেম করতে চাচ্ছেন? আপনি কি তাকে আপন করে পেতে চাচ্ছেন? তাহলে আজকের লেখাটি আপনার জন্য। এখানে আমরা আপনাকে মেয়ে পটানোর সহজ উপায়, টিপস ও কৌশল সমূহ শেখাবো। এসকল উপায় অবলম্বন করে আপনি খুব সহজেই মোবাইল ফোন এবং ফেসবুকের মাধ্যমে মেয়ে পটাতে পারবেন।

মেয়ে পটানোর উপায়

বর্তমানে যেমন অনেক চালাক মেয়ে আছে তেমনি আছে অনেক বোকা মেয়ে। আপনি চেষ্টা করলে অবশ্যই আপনার পছন্দের মানুষকে পটিয়ে ফেলতে পারেন। মেয়েরা কি কি পছন্দ করে এবং তারা আপনার থেকে কি আশা করে সে সম্পর্কে ধারনা থাকলে আপনি খুব সহজেই কাজটি করতে পারবেন।

মেয়ে পটানোর উপায়

বিভিন্ন পরিস্থিতিতে বিভিন্ন ভাবে মেয়েদের পটানো লাগে। যাকে খাঁটি বাংলা ভাষায় বললে, অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেওয়া।

আমরা আপনাকে সকল ধরনের উপায় বলে দেব। ইন্টারনেটে ইতিমধ্যে অনেকগুলো উপায় এবং টিপস দেওয়া হয়েছে। কোনটা কার্যকরী আবার কোনটা কার্যকারিতা হারিয়েছে। কারণ আপনি যাকে ইমপ্রেস করতে চান সেও হয়তো এই লেখাটি পড়ে সচেতন হয়ে গেছে।

এসকল কারণেই আমরা সম্পূর্ণ নতুন এবং আধুনিক কৌশল নিয়ে হাজির হয়েছি। আজকে আমরা সে সকল টিপস সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

প্রথমেই আসি মোবাইলে মেয়ে পটানোর উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনায়।

মোবাইলে মেয়ে পটানোর উপায় এবং টিপস

মেয়ে পটানোর উপায়, টিপস ও কৌশলসমূহ - মোবাইল ফোন এবং ফেসবুকে মেয়ে পটানো শিখুন

মোবাইলে মেয়ে পটানোর জন্য প্রথমে আপনাকে যে কাজটি করতে হবে তা হলো আপনার কাঙ্খিত ব্যক্তির মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করা। আপনি বিভিন্ন ভাবে তার নাম্বার পেতে পারেন। সে যদি আপনার পরিচিত হয় তাহলে আপনার অন্য কোন আত্মীয়-স্বজনের মাধ্যমে নাম্বারটি নিতে পারেন। বা এমনও হতে পারে সে আপনার বোনের বান্ধবী। সেক্ষেত্রে আপনার বোনের মাধ্যমেও নাম্বারটি সংগ্রহ করে নিতে পারেন।

এরপরে আপনাকে যে কাজটি করতে হবে তা হল আপনার পছন্দের মানুষটিকে মোবাইল করা। তবে এ ব্যপারে খুব সচেতন হতে হবে। সব সময় মানুষের মন-মানসিকতা এক থাকেনা। আপনি যদি প্রথম দিনেই গভীর রাতে ফোন করে বসেন তাহলে মেয়েটি হয়তো আপনাকে খারাপ ভাববে।

সেজন্য আপনাকে যা করতে হবে তা হল, বিকেল বা সকালে ফোন করবেন। কেমন আছে, কি করছে সে সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করবেন। অবশ্যই আপনার পরিচয় গোপন করবেন না। এতে মেয়েটি রাগ করে মোবাইল ফোন রেখে দিতে পারে। আপনার আসল পরিচয় দিবেন এবং কিভাবে তার নাম্বার পেলেন তা বলে দিবেন।

তাহলে মেয়েটির মনে মনে ভাববে আপনি তাকে পছন্দ করেন বা বন্ধুত্ব করতে চাচ্ছেন। এরপরে তাকে বেশি বিরক্ত না করে ফোনটি রেখে দিবেন। 2 বা 1 দিন পরে আবার কল করবেন। এভাবে আস্তে আস্তে ঘন ঘন কল করা শুরু করবেন।

আর যদি জানতে পারেন মেয়েটি ইতিমধ্যেই অন্য কারো হয়ে গেছে তাহলে নিরাশ হবেন না। বন্ধুত্ব করতে হবে। কারণ প্রতিটি সম্পর্কে কোন সময় দুর্বলতা আসে। এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা যায় প্রেমিক প্রেমিকার ঝগড়া হলে তৃতীয় পক্ষ সুযোগ নেয়।

আপনাকেও সে কাজটি করতে হবে। সুতরাং আপনাকে একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে আর তা হলো যত্নশীল হওয়া। মেয়েটিকে পছন্দ করে এবং কি পছন্দ করে না সে মোতাবেক আপনাকে চলা লাগবে।

মেয়ে পটানোর ডিজিটাল ১০টি উপায়

মেয়ে পটানোর উপায়, টিপস ও কৌশলসমূহ - মোবাইল ফোন এবং ফেসবুকে মেয়ে পটানো শিখুন

প্রিয় ভাইগণ মেয়ে পটানোতে যারা আন এক্সপার্ট তাদের কোন টেনশন করার দরকার নাই।
এসে গেছে যুগান্তকারী ভার্চুয়াল লাভগুরুর মেয়ে পটানোর ডিজিটাল তরিকা। এই ডিজিটাল তরিকায় লাভগুরু বিজ্ঞানীনিউটনের ৩য় সূত্রের বিয়াপক প্রয়োগ করেছেন।

তরিকা গুলো হচ্ছেঃ
তরিকা ১ঃ

প্রথমে যে মেয়েটিকে পছন্দ
করেন তার দিকে অপলক
দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকুন। যখন
মেয়েটি আপনার
দিকে তাকাবে তখনমেয়েটিকে ইশারা করুন যে ওর
গালে কিছু একটা আছে।যখন মেয়েটি তার গাল স্পর্শ করতে যাবে ঠিক তখনই ইশারায়
আবার বলুন এই গালে না ঐ গালে।
এটা এক অভিনব প্রক্রিয়া। যা নাই ভরসা বাবার তরিকায় পুইলাস্থান নিয়েছে।
নিশ্চিত থাকেন মেয়েটি ওরগাল
স্পর্শ করুক বা না করুক আপনার
গালে ঠিকই পাঁচ আংগুল স্পর্শ করবে।

তরিকা ২ঃ
মেয়েটির সাথে ঐ
টপিক নিয়ে কথা বলুন
যা মেয়েটি পছন্দ করে।
এতে করে আপনার সাথে বহুক্ষণ
টাইম পাস করবে।
সাবধান এমন কোন টপিক নিয়া কথা বলবেন না, যেটাই
আবার আপনি বোবা হয়ে থাকেন।
তাহলে কিন্তু শ্রোতা হয়ে শুনতেই হবে।

তরিকা ৩ঃ
মেয়েদের সাথেওদের সম্পর্কে বেশী কথা বলুন।
এতে করে মেয়েরা ভাববে যে আপনি ওর প্রতি দূর্বল।
এক্ষেত্রে আবার অনেকে ইন- ডাইরেক্টলি প্রপোজ করে বসে।
ভুলেও এই কাজ করবেন না।

তরিকা ৪ঃ
যদি মেয়েদের পটাতে চান তাহলে মেয়েটির পাশে যাওয়ার চেষ্টা করুন, মেয়েটিকে পিছু নিন।
দেখুন কই যায়। তাকে লক্ষ্য করতে থাকুন।
কিছুদিন করার পর আর করবেন না। দেখবেন মেয়েটি আপনাকে মিস করছে।
সাবধানে পিছু নিবেন। যদি ধরা পরেন তাহলে কিন্তু জামিন নাই।

তরিকা ৫ঃ
মেয়েরা দলবদ্ব
থাকলে পটাতে নাকি সুবিধা হয়।
সুতরাং যে মেয়েটিকে পটাতে চান
তাকে এট্রাক্ট করার মত কিছু
করার চেষ্টা করুন।
এমন কিছু করিয়েন না যাতে পাড়ার বড় ভাইদের কাছ
থেকে দাবড়ানি খাওয়া লাগে।

তরিকা ৬ঃ
সবসময় মেয়েদের চোখে চোখ রেখে কথা বলবেন।
এদিক ওদিক তাকিয়ে কথা বললে তারা মনে করে,
তার সাথে আপনার কথাবলার
তেমন কোন আগ্রহ নেই। এমন ভাবে তাকাইয়েন নাযেন
জীবনেও মেয়ে মানুষ দেখেন নাই।

তরিকা ৭ঃ
যখনই কোন মেয়ের সাথে দেখা করবেন যত
কষ্টই হোক এক গাল হাসি দিবেন।
৩২ টা দাঁত বাহির করে হাসবেন
না। ও দাঁত মেজে তারপর হাসি দিয়েন।

তরিকা ৮ঃ
সদা সাহায্য করার জন্য প্রস্তুত থাকবেন।
সাহায্য করতে গিয়া আবার যেন
আপনারই কোনকারও সাহায্য
না নেয়া লাগে।

তরিকা ৯ঃ
মেয়েরা বার্থ ডে, ভালবাসা দিবস এসব প্রেম
বিষয়ক বিশেষ দিন গুলোর ব্যাপারে অতি মাত্রায়
সিরিয়াস। তাই তাদের বার্থ
ডে মনে রাখবেন। আর আন-কমন কিছু গিফট দেয়ার
চেষ্টা করবেন। যদি না পারেন একটা লাল গোলাপ নিয়া রোমিও
স্টাইলে উইশ করবেন। নিজের নাম ভুলে যান
অসুবিধা নাই তবু ও বার্থেডে ভুইলেন না। দরকার
পরলে মোবাইলে রিমাইন্ডার
দিয়ে রাখবেন।

তরিকা ১০ঃ
কোন সময় রাগ করবেন
না। মনে রাখবেনরেগে গেলেন তো হেরে গেলেন।
মেয়েরা অনেক সময়ই আপনাকে টেস্ট করতে চাইবে।
তাই রাগবেন না। মাথা ঠান্ডা রাখিবেন।

এই হল লাভগুরুর ডিজিটাল তরিকা।বাস্তব
জীবনে ধরা না খাইতে চাইলে প্রয়োগ কইরেন।মেয়ে পটানোর সময়
লাভগুরুর দোয়া অবশ্যই আপনাদের
পাশে বিরাজমান থাকবে। তবে মেয়ে পটানো আর খাল
কেটে কুমির আনা সমান কথা।
হ্যাপি পটানিং

Updated: August 6, 2020 — 6:18 pm

The Author

শাহরিয়ার হোসেন

শাহরিয়ার হোসেন একজন ক্ষুদ্র ব্লগার। লিখতে খুব ভালোবাসেন। অনলাইনে বিভিন্ন ব্লগে ২০১৮ সালের জানুয়ারী থেকে লিখছেন। কাজের চেয়ে নিজের নাম প্রচারের ওপর বেশি গুরুত্ব দেন। সে চিন্তা থেকেই এই ব্লগের উৎপত্তি। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স কমপ্লিট করেছেন। বর্তমানে একই বিভাগে মাস্টার্স এ অধ্যায়নরত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *