মাতৃত্বকালীন ভাতা কিভাবে পাওয়া যায়

মাতৃত্বকালীন ভাতা কিভাবে পাওয়া যায়

২১ শত করে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন পদ্ধতি বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিয়ে বাংলাদেশকে উন্নত করার চেষ্টা করছে। তাদের মধ্যে আরও একটি বড় প্রোগ্রাম হলো মাতৃত্বকালীন ভাতা বা গর্ভবতী ভাতা। আপনারা হয়তো অনেকেই এর পূর্বে এই ভাতা সম্পর্কে শুনেছেন। আজকে আমরা এই বিষয় সম্পর্কে ধারণা দেবো আশা করছি আপনারা আমাদের সঙ্গে থাকবেন।

অনলাইনের যুগে আপনি মাতৃত্বকালীন ভাতা সম্পর্কে সবকিছু জানতে পারবেন আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে। আপনারা যদি মাতৃত্বকালীন ভাতা সম্পর্কে কোন কিছু জানতে চান তাহলে অবশ্যই আমাদের এই আর্টিকেল পড়লে সেখান থেকে অনায়াসে আপনারা সেই ভাতার সকল তথ্য জানতে পারবেন। তাহলে চলুন মাতৃত্বকালীন ভাতা সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানা যাক।

মাতৃত্বকাল ভাতা মঞ্জুরী আবেদন ফরম

অবশ্যই একটি সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া রয়েছে যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি মাতৃত্বকালীন ভাতার জন্য আবেদন করতে পারেন। এমনটি নয় আপনি আবেদন করবেন আর সঙ্গে সঙ্গেই সেটা গ্রহণযোগ্য হয়ে যাবে এবং আপনি ভাতা পাওয়ার সময় ভাতা পাবেন। অবশ্যই এর জন্য আপনাকে সঠিক নিয়ম মেনে আবেদন করতে হবে এবং আপনি যদি এই ভাতা পাওয়ার যোগ্য হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে ভাতা প্রদান করা হবে।

তবে মাতৃত্বকালীন এই ভাতার জন্য যে মঞ্জুরি আবেদন ফ্রম আছে সেই আবেদন ফরমটি আমাদের দেওয়া এই লিংক থেকে আপনারা সংগ্রহ করতে পারবেন। তাহলে আর দেরি না করে ঝটপট আমাদের এখান থেকে মাতৃত্বকালীন ভাতার ফর্মটি ডাউনলোড করে নিন।

গর্ভবতী ভাতা জন্য অনলাইন আবেদন সংক্রান্ত সকল তথ্য

আপনি যদি গর্ভবতী হয়ে থাকেন বা আপনি যার জন্য আবেদন করতে চাচ্ছেন তিনি যদি জুলাই মাসে গর্ভবতী থাকা অবস্থায় মাতৃত্বকালীন ভাতার জন্য আবেদন করেন তাহলে সেটা সঠিক হবে। এক্ষেত্রে প্রধান যে জিনিসটির প্রয়োজন পড়বে সেটি হল মেডিকেল রিপোর্ট এবং জাতীয় পরিচয় পত্র সহ ইউপি অফিসে অথবা পৌরসভা অফিসে আপনাকে আবেদন ফরম জমা দিতে হবে।

গর্ভকালীন ভাতা অবশ্যই দরিদ্র মাদের প্রদান করা হয় যারা তাদের সন্তানের ভরণপোষণের জন্য এই মাতৃত্বকালীন ভাতা পেয়ে থাকেন।আপনাদের সকলের সুবিধার্থে একটি বিষয় জানিয়ে দিন গর্ভবতী ভাতা নগদ অর্থে প্রদান করা হয় এবং এখানে বহু প্রতারক চক্র রয়েছে যারা এখান থেকে কিছু টাকা খাওয়ার চেষ্টা করে বা তোলার চেষ্টা করে।

একটা প্রতিবেদন থেকে উঠে এসেছে যে হেমনগড় ইউনিয়নের ২৫ জন গর্ভবতী মহিলার কাছ থেকে মাতৃত্বকালীন ভাতা কার্ড দেওয়ার কথা বলে ৬০০০ টাকা করে ঘুষ নিয়েছেন প্রতারক কারীরা। তাই আপনাকে অবশ্যই এই ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য মানতে হবে।

মাতৃত্বকালীন ভাতার নিয়মাবলী

মাতৃত্বকালীন ভাতার অবশ্যই কিছু নিয়ম রয়েছে এবং সরকারের প্রকল্প বাস্তবায়ন ও সরকারের চলমান উন্নয়ন কার্যক্রমের সাথে জনগণকে সম্পৃক্ত লক্ষ্যে এই ভাতা চালু করা হয়েছে।

নির্বাচিত গর্ভবতী মাকে দুই বছরব্যাপী প্রতি মাসে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত হারে ভাতা প্রদান করতে হবে। সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ভাতার পরিমান রাজনীতি হতে পারে তবে বর্তমানে ভাতার পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা যৌথ স্বাক্ষরে ব্যাংক একাউন্ট পরিচালিত হবে এবং এই ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে সকল কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। আরো উল্লেখ খুঁজে ৬৪ জেলার সদর উপজেলায় জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের প্রোগ্রামে অফিসার এই দায়িত্ব পালন করবেন।

গর্ভধারণ অবস্থায় গর্ভপাত ঘটলে গর্ভপাত পরবর্তী তিন মাস পর্যন্ত ভাতা অব্যাহত থাকবে। সন্তান জন্মগ্রহণের দুই বছরের মধ্যে মারা গেলে সংশ্লিষ্ট 24 মাস পূর্ণ হয় অবশিষ্ট সময় ভাতা পাবেন।

নির্বাচিত গর্ভবতীর মা দুই বছরের মধ্যে মারা গেলে তার ভাতা প্রদান বন্ধ হয়ে যাবে এবং অন্য কোন গর্ভবতী মা নতুন করে নির্বাচন করা যাবে না। এই কার্যক্রমের মাধ্যমে দরিদ্র মায়েরা মাতৃত্বকালীন আর্থিক সহযোগিতার পাশাপাশি মাতৃদুগ্ধ পানির উপকারিতা ও গর্ব অবস্থায় উন্নত পুষ্টির খাদ্য গ্রহণ প্রসব উত্তর সেবা বৃদ্ধি সুযোগ পাচ্ছেন।

About শাহরিয়ার হোসেন 4780 Articles
Shahriar1.com ওয়েবসাইটে আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় যা কিছু দরকার সবকিছুই পাবেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*