নেইমারকে নিয়ে স্ট্যাটাস ক্যাপশন উক্তি

বিশ্বকাপ খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। প্রিয় দলের খেলা দেখার জন্য ভক্ত সমর্থকরা অনেকদিন অপেক্ষা করলেন। প্রিয় দলের সাথে সাথে প্রিয় খেলোয়ারদের খেলাও বিশ্বকাপে দেখার জন্য সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে। বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা তারকা নেইমার জুনিয়র। ব্রাজিলের হয়ে এবার তৃতীয় বিশ্বকাপ খেলবেন তিনি। ভক্তসমর্থকরা আশায় বুক বেঁধেছেন এবারে বিশ্বকাপ জেতাবেন নেইমার। বিশ্বকাপ জেতার মত সকল সামর্থ্য ব্রাজিলের এই দলটি রয়েছে যাকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবেন নেইমার জুনিয়র।

নেইমারের ভক্তদের জন্য আমাদের আজকের পোস্টটি অত্যন্ত কার্যকরী হতে চলেছে ‌। আমাদের আজকের পোস্টে নেইমারকে নিয়ে বিভিন্ন ধরনের স্ট্যাটাস উক্তি ও ক্যাপশন কিভাবে দেওয়া যাবে তা নিয়ে আলোচনা করা হবে। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে অনেকেই নিজেদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একাউন্টের প্রোফাইল চেঞ্জ করে নেইমারের ছবি আপলোড করছেন। নেইমারের ছবি আপলোড করার পর সেখানে কি ধরনের ক্যাপশন দেওয়া যাবে তা নিয়ে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব। নেইমারের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার নিয়ে অনেক আলোচনা করা হবে এই আর্টিকেলে। শেষ পর্যন্ত আমাদের সাথেই থাকুন।

নেইমারকে নিয়ে স্ট্যাটাস ক্যাপশন

ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে নেইমার প্রথম বিশ্বকাপ খেলেন ২০১৪ সালে। ২০১৪ সালে ব্রাজিলের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ব্রাজিল সেবার স্বাগতিক দল হাওয়ায় অনেকে ভেবেছিলেন ষষ্ঠ শিরোপা হয়তো সে বছরই জিতবে ব্রাজিল। জেতার মতো যথেষ্ট শক্তিশালী দল গড়লেও দুর্ভাগ্য পিছু ছাড়েনি। ইনজুরিতে পড়ে একের পর এক সেরা খেলোয়ার। দুটো হলুদ কার্ড খাওয়াই সেমিফাইনাল ম্যাচে খেলতে পারেননি ক্যাপ্টেন থিয়াগো সিলভা। থিয়াগো সিলভা পুরো বিশ্বকাপে ব্রাজিলের রক্ষণভাগের নেতৃত্বে ছিলেন। থিয়াগো সিলভার অনুপস্থিতিতে সেবার সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে বিধ্বস্ত হতে হয়েছিল ব্রাজিলকে।

নেইমার বাংলাদেশকে ভালোবাসেন। তিনি বিশ্বাস করেন, ব্রাজিলের পর নেইমারের সবথেকে বেশি ফ্যান আছে বাংলাদেশে।❤️

বিশ্বকাপ শেষে একসাথে বাংলাদেশে আসছেন মেসি ও নেইমার !

নেইমার তুমি আছো মিশে.
কোটি ভক্তের কন্ঠের সাথে,
হাজারো প্রত্যাশা তোমাকে ঘিরে,
নিওনা তুমি চাপ।
নেইমার তুমি পারবে জিতাতে
৬ষ্ঠ বিশ্বকাপ।

“আমি বাংলাদেশ চিনি , বাংলাদেশকে অনেক ভালবাসি ,আমি বিশ্বাস করি ব্রাজিলের পর বাংলাদেশেই আমার সবচেয়ে বেশি ফ্যান আছে”।
🎙️ বলেছে নেইমার জুনিয়র 🇧🇷🇧🇩

কলম্বিয়ার বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে নেইমার গুরুতর আহত হন। মেরুদন্ডে আঘাত পেয়ে সেবারের মতো বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়েন নেইমার জুনিয়র। ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্বপ্ন সেখানেই শেষ হয়ে যায়। এরপরও অনেকে ভেবেছিলেন হয়তো সেমিফাইনালে জার্মানিকে হারিয়ে ব্রাজিল শিরোপা স্বাদ নেবে কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। নেইমার ও সিলভারকে ছাড়া মানসিকভাবে ভীষণভাবে ভেঙে পড়ে ব্রাজিল। সেমিফাইনালে সেই ম্যাচটিতে ব্রাজিল দলকে দেখে মনে হচ্ছিল আত্মবিশ্বাসের বড়ই অভাব।

🎙 নেইমার জুনিয়র
বিশ্বকাপ জেতা আমার সবচেয়ে বড় স্বপ্ন। যখন থেকে আমি ফুটবল বুঝতাম। এখন আমার স্বপ্ন পূরণের জন্য আরেকটি সুযোগ আছে। আশা করি আমার স্বপ্ন পূরণ হবে. 🤝🇧🇷🤝

২০১৪ সালে ঘরের মাটিতে জার্মানির কাছে সেমিফাইনালে বিধ্বস্ত হওয়ার পর পুরো দলকে নতুনভাবে সাজানো শুরু করে ব্রাজিলের নতুন কোচ তিতে। দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী ফুটবল দিয়েই বিশ্বজয় করার পরিকল্পনা করেন তিতে। ২০১৮ সালে তিতের নেতৃত্বে রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলতে আসে ব্রাজিল জাতীয় দল। সে দলের যথেষ্ট প্রতিভাবান খেলোয়াড় ছিল।

আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাচ্ছে কাতারের মরুর বুকে
প্রথমবারের মতো ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ 🏆
তাই বিশ্বকাপকে সামনে রেখে চলছে সেলেসাওদের ফটোশুট.!🇧🇷📸
সবচাইতে ভালো লাগলো তাদের দুষ্টুমি উল্লাস দেখে 🥰
আবেগের আরেক নাম ব্রাজিল!🇧🇷💙

“কাতার এবার ব্রাজিলকে বিশ্বকাপ জিতাবেন নেইমার”-

গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোতে নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েই তৃতীয় পর্বে খেলার সুযোগ পেয়েছিল ব্রাজিল। সুপার সিক্সটিনে সুইজারল্যান্ড তাদের বাধা হয়ে দাঁড়ায়। নির্ধারিত সময়ের খেলা এক এক গোলে ড্র হলেও পেনাল্টি শুট আউটের মাধ্যমে খেলার নিষ্পত্তি হয়। পেনাল্টি শুট আউট এ সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে ব্রাজিল কোয়ার্টার ফাইনাল খেলার সুযোগ লাভ করে। কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে ২-১ ব্যবধানে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হয় ব্রাজিলকে।

আপনি কি জানেন.? নেইমার তার ফুটবল ক্যারিয়ারে মোট কতবার ফাউলের স্বীকার হয়েছে…?
যদি না জানেন,তাহলে জেনে নিন। যারা নেইমারের “বিরুদ্ধাচারণ” করতে গিয়ে তাকে অভিনেতা বানাই ফেলেন,তাদরকে বলতেছি, নেইমার তার এই ইনজুরিমুক্ত ক্যারিয়ারে মোট ১২০০ এর অধিক বার ফাউল এর শিকার হয়েছে। যাকিনা আজ পর্যন্ত ফুটবল ইতিহাসে খেলা যেকোনো প্লেয়ার এর চেয়ে বেশি!😊🙂
এরপর ২য় স্থানে থাকা লিওনেল মেসি ক্যারিয়ারে ৯৫০ এর অধিক ফাউল হয়েছেন। যেখানে নেইমার মেসি থেকে প্রায় ৪০০ ম্যাচ কম খেলেছে। 😶
নেইমার মানুষটা এখনো যে ফুটবল খেলতেছে। নেইমার শুধু খেলতেছে না, সে ওয়ান অফ দ্যা বেস্ট হিসেবে ফুটবল খেলতেছে।😊🥰

২০১৮ সালের ব্যস্ততার পর এবার ব্রাজিল চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছাড়া কিছুই না। এ বছর তারা আরো বেশি শক্তিশালী হয়েছে। নেইমার জানিয়েছিলেন এই বিশ্বকাপ হলেও হতে পারে। তাই বিশ্বকাপ বিকল্প কোন কিছুই ভাবছেন না তারা। নেইমার বর্তমানে পিএসজিতে খেলছেন। প্যারিসের এক ক্লাবটিতে নেইমারের পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে নেইমার বরাবরই খুব ভালো খেলেন। ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতা হতে আর কিছুটা পথ বাকি আছে।

আর মাত্র দুটি গোল করলেই ছুঁয়ে ফেলবেন ব্রাজিল কিংবদন্তি পেলে কে। নেইমারের ভক্তরা আশা করছেন এবারের বিশ্বকাপে ই পেলে কে ছাড়িয়ে যাবেন নেইমার। তাই এবারের বিশ্বকাপ কে নেইমারের জন্য অনেক স্পেশাল হতে চলেছে। ব্রাজিল ভক্তরা নিশ্চয়ই খুব করে চাইবেন নেইমার চ্যাম্পিয়ন হয়েই ফুটবল থেকে অবসর নিক।

নেইমার ২৬ বিশ্বকাপ খেলবে কিনা আমার সন্দেহ আছে এবং আমি তার মতামতকে সম্মান করি, কিন্তু আমি বিশ্বাস করি নেইমার ২৬ বিশ্বকাপ খেলবেন
~~~🗣️তিতে

নেইমারকে নিয়ে অনেক অনেক ক্যাপশন ও স্ট্যাটাস পেতে আমাদের সাথেই থাকুন। আপনাদের নিজেদের মন্তব্য জানিয়ে দিন নেইমার এই বিশ্বকাপে কেমন খেলতে পারে তা নিয়ে। নেইমার কি এবার বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা হতে পারবে? আপনার কি মনে হয়?

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button